দ্য পিপল ডেস্ক : গ্রেগ চ্যাপেলের নামটা ভারতীয় ক্রিকেটের এক এমন অধ্যায়ের মতো যা হয়ত কেউই কোনওদিন পড়তে চাইবেন না।


এই অধ্যায়ের পাতা বোধহয় চিরকাল বন্ধই থাকবে। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাদ হোক বা ২০০৭ বিশ্বকাপে ভারতীয় ক্রিকেট দলের ভরাডুবি, সব কিছুরই নেপথ্যে ছিলেন এই অজি কিংবদন্তী।


নিজের দেশ অস্ট্রেলিয়ায় তিনি নায়কের তকমা পেলেও ভারতে তিনি ভিলেন ছাড়া আর কিছুই নয়। তাঁর স্ট্র্যাটেজি থেকে টিম সিলেকশন, বারবার গ্রেগকে একহাত নিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা।


সম্প্রতি মহেন্দ্র সিং ধোনি প্রসঙ্গে বক্তব্য রেখেছিলেন অজি তারকা। গ্রেগ বলেছিলেন, মাহিকে উঠতি বয়সে ডাউন দ্যা গ্রাউন্ড অর্থাত বল মাটিতে রেখে বেশি খেলতে বলতেন তিনি।


যদিও এই কথাটি পছন্দ হয়নি আরেক প্রাক্তন তারকা হরভজন সিংয়ের। কারণ স্বভাবসিদ্ধ ঢংয়ে মাহির খেলা থামিয়ে দেওয়ায়, তাঁর পারফরমেন্সেও প্রভাব পড়েছিল বলে মনে করেন ভাজ্জি।


পঞ্জাব তনয় জানান, গ্রেগ চ্যাপেলের সময়কালই ভারতীয় দলের সব থেকে খারাপ সময় ছিল। সঙ্গে ভাজ্জি আরও বলেন, গ্রেগ বাকিদের মাঠের বাইরে পাঠানোর চেষ্টা করছিলেন, তাই মাহিকে বলছেন মাঠের বাইরে বল না পাঠাতে। ও অন্য একটা খেলা খেলছিল তখন।


এবার যুবরাজ সিংও মুখ খুললেন ভারতীয় দলের প্রাক্তন কোচ গ্রেগ চ্যাপেলের বিপক্ষে। যুবি বলছেন, ধোনি এবং তাকে গ্রেগের স্পষ্ট বার্তা ছিল যাতে শেষ দশ ওভারে ছয় না মারে।


এক দশকেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে অন্যায্যভাবে দল থেকে বাদ দেওয়া যে কেউই মেনে নিতে পারেননি সেটা আজও বোঝা যাচ্ছে।


২০০৭ বিশ্বকাপে গ্রুপ স্টেজ থেকেই বিদায় নিতে হয়েছিল ভারতকে। সচিন-দ্রাবিড়-ধোনিদের মতো তারকা খচিত দল নিয়েও হারতে হয়েছিল বাংলাদেশের মত দলের বিপক্ষে।


সেই ক্ষত যে আজও দগদগে যুবি-ভাজ্জির মধ্যে তা বোঝাই যায়।