দ্য পিপল ডেস্কঃ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০০৭। এই দিনটি মহেন্দ্র সিং ধোনির জীবনের এক ঐতিহাসিক মোড়। ভারতের জার্সিতে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হয়েছিল রাঁচির ছেলের।

 ২০০৭ একদিনের বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হেরে গ্রুপ লিগ থেকে ছিটকে গিয়েছিল ভারত। এরপরই তৎকালীন অধিনায়ক রাহুল দ্রাবিড়ের ক্যাপ্টেন্সি নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছিল দলের অন্দরমহলে।   

 বিশ্বকাপের রেষ কাটতে কাটতেই ৬মাস মধ্যেই শুভারম্ভ হয়েছিল টি-২০ বিশ্বকাপের । কিন্তু প্রতিযোগিতায় নিয়মানুযায়ী, খেলতে পারবেন না সৌরভ গাঙ্গুলি, সচিন তেন্ডুলকার ও রাহুল দ্রাবিড়ের মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা। তবে এই দলের অধিনায়কত্ব কে করবেন ? কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল নির্বাচকদের।

 রবিন উথাপ্পা, শ্রীসান্থ, গম্ভীর ও আর পি সিং-য়ের মতো তরুণ খেলোয়াড়দের নেতৃত্বে দেবেন কে ? এই সময়ে নির্বাচিত দলের মধ্যে অভিজ্ঞ ছিলেন ধোনি, বীরেন্দ্র শেহওয়াগ, যুবরাজ ও হরভজন সিং। বহু আলোচনার পর নির্বাচকরা মাহির ওপরই দায়িত্ব দেন তরুণ ভারতীয় দলের।

 ১২ সেপ্টেম্বর স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে অধিনায়ক হিসেবে প্রথম ম্যাচে অভিষেক হওয়ার কথা ছিল ক্যাপ্টেন কুল-এর। তবে বৃষ্টি হওয়ার জেরে ভেস্তে যায় ম্যাচটি। দু দিন পরই দ্বিতীয় ম্যাচ ছিল পাকিস্তানের বিরুদ্ধে।

 ১৪ সেপ্টেম্বর ডারবনের মাটিতে চির প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মুখোমুখি হয়েছিল ভারত। এই ম্যাচও শেষ হয়েছিল ট্র্যাজেডিপূর্ন ভাবে। ড্র ম্যাচে হিট দ্য উইকেটে ঐতিহাসিক জয় পায় ভারত। অধিনায়কত্বের অভিষেকে বিশ্বকাপ জিতে নতুন মাইলফলক পার করলেন মাহি।  

প্রথম ভারতীয় অধিনায়ক হিসেবে সবকটি আইসিসি ট্রফি জয়ের নজির রয়েছে ধোনির। ২০০৭ টি-২০ বিশ্বকাপ জয়ের পর ২০১১ সালে মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ২৮ বছর পর ভারতের মাটিতে বিশ্বকাপ এনেছিলেন তিনি।

 পাশাপাশি টেস্টে ১ নম্বর দল হিসেবে ভারতকে তুলে আনেন ক্যাপ্টেন কুল। ২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে অ্যালেস্টার কুকদের মাত দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিও ছিনিয়ে আনেন তিনি। এরপর ২০১৪ সালে টেস্ট থেকে অবসর নেন ধোনি।

দেখতে দেখতে পেরিয়ে গেছে ১২ বছর। এর মধ্যে গঙ্গা দিয়ে বয়ে গিয়েছে অনেক জল। অবশ্য ২০১৭ সালেই একদিন ও টি-২০ ফর্ম্যাটের দায়িত্ব তুলে দেন বিরাটের ওপর।

সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপের পরই দল থেকে ধোনিকে সরিয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। বারবারই তাঁর পরিবর্ত হিসেবে ঋষভকে দলে ব্যবহার করা হবে। এমনটাই জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচক এম কে প্রসাদ।

এরপর বহুবার অবসরের জল্পনা উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। অবসর নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত মেলেনি মহেন্দ্র সিং ধোনির তরফে।    

36 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here