Dharamshala: Indian cricket team captain Virat Kohli during a press conference in Dharamshala, on Saturday, Sept. 14, 2019. India and South Africa are scheduled to play their first T20 match of a three-match series on Sunday, Sept. 15. (PTI Photo/Atul Yadav)(PTI9_14_2019_000059A)

দ্য পিপল ডেস্কঃ হাতে বাকি মাত্র ১৩ মাস। তারপরেই ডনের মাটিতে বসতে চলেছে টি-২০ মহারণ। এর আগে দেশের মাটিতে দঃ আফিকা, বাংলাদেশ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, জিম্বাবোয়ে ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজ খেলবে ভারত। এছাড়া একটি সিরিজ খেলবে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে।

 বিশ্বকাপের আগে মোট ১৬টি ম্যাচ খেলবে ভারতীয় দল। তার মধ্যে বেশিরভাগই দেশের মাটিতে। তাই আগামী সাউথ আফ্রিকা সিরিজ থেকেই টি-২০ বিশ্বকাপের জন্য ঘুটি সাজাবে টিম ম্যানেজমেন্ট। অতিরিক্ত সুযোগ দেওয়া হবে তরুণ খেলোয়াড়দেরকে। শনিবার প্রি-ম্যাচ কনফারেন্সে অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেন,  আগামী দু-তিনটি সিরিজে নতুনদের পরীক্ষা করে দেখা হবে। দেওয়া হবে নতুনদের জায়গা। প্রমান করার সুযোগ পাবে তাঁরা।

 কোন তরুণ খেলোয়াড়রা স্থান পেতে পারে-

ওপেনিং জুটিঃ  ভারতের সেলামি জুটি রোহিত-ধাওয়ানকে প্রথম একাদশে রাখা হবে। এছাড়া পাশাপাশি টি-২০-তে ওপেনিংয়ে বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের জন্য তৃতীয় ওপেনার হিসেবে বাছা হতে পারে লোকেশ রাহুলকে। বিশ্বকাপে ধাওয়ানের অনুপস্থিতিতে রোহিতের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি। যদিও তরুণ খেলোয়াড় হিসেবে নজর রাখা হচ্ছে শুভমন গিলের ওপর।

মিডিল অর্ডারঃ  তৃতীয় স্থানের জন্য ফিক্সড বিরাট কোহলি। তবে চতুর্থ নম্বর ও পঞ্চম স্থানে কাকে খেলানো হবে। তা নিয়ে সংশয় আছে। কারণ, চতুর্থ ও পঞ্চম নম্বর স্থানের জন্য ঋষভ পান্থ, শ্রেয়স আইয়ার ও মনিশ পাণ্ডের মধ্যে লড়াই চলবে। সম্প্রতি ফর্মের দিকে তাকিয়ে দেখলে এগিয়ে শ্রেয়স ও পাণ্ডেয়া ।

 

 অন্যদিকে, পঞ্চম স্থানে উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে দলের জন্য ভাবা হয়েছে তরুণ ঋষভকে। কিন্তু তাঁর সম্প্রতি ফর্ম চিন্তায় ফেলেছে দলের। তাই ভাবা হতে পারে দীনেশ কার্তিকের কথাও। নিধাস ট্রফিরে সেই ফিনিশ এখনও বহু ভারতীয়ের মনে জায়গা করে নিয়েছে। তবে এই স্থানের আলোচনার বিষয়বস্তুতে আছেন আরও একটা নাম মহেন্দ্র সিং ধোনি। তিনি যদি খেলতে চান তাহলে হয়তো ব্যাকআপ হিসেবে নেওয়া হবে ঋষভকে।

অলরাউন্ডারঃ  দলে অলরাউন্ডার হিসেবে প্রথম পছন্দ হার্দিক পাণ্ডেয়াই। তাঁর পাশাপাশি সুযোগ পেতে পারেন ক্রুণাল পাণ্ডেয়া। সঙ্গে দলে রাখা হতে পারে রবীন্দ্র জাদেজাকে।

স্পিন ডিপার্টমেন্টঃ কুল-চা জুটিকে সামনে রেখেই দল সাজাবে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার পিচে বাউন্স বেশি থাকায় রিস্ট স্পিনাররা বেশি সুবিধে পাবে। তাই ব্যাকআপ হিসেবে তরুণ রাহুল চাহার বা মায়াঙ্ক মারখান্ডে সুযোগ দেওয়া যেতে পারে।

পেস বোলিং ডিপার্টমেন্টঃ বুমরাহ-ভুবনেশ্বরের সঙ্গে কাকে রাখবে দল ? অভিজ্ঞ শামির ওপর ভরসা রাখবে নাকি তৃতীয় পেসার হিসেবে নতুন মুখ খুঁজবে নির্বাচকরা। যদিও পেস ডিপার্টমেন্টে নতুন মুখ নভদ্বীপ সাইনি ও খালিল আহমেদের মতো খেলোয়াড়কে ব্যবহার করা যেতে পারে। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে পেস বোলারের গতির জোরের জন্য বেশি সুবিধে পাবে বলেই নভদ্বীপকে এগিয়ে রাখবে নির্বাচকরা।

 এখন শুধুই দেখার আগামী এই ১৩ মাসে কোন খেলোয়াড়কে দেখা জায়গা করতে পারে। যদিও আগামী দুটি সিরিজ যে খেলোয়াড়রা নিজেদের তুলে ধরতে পারবে। তাদেরকে বিশ্বকাপের মঞ্চে দেখা যেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here