দ্য পিপল ডেস্কঃ  বিশ্বজুড়ে তুমুল বিতর্কের পর অবশেষে সাফাই দিল হোয়াটসঅ্যাপ।

গ্রাহকদের বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে নিজেরাই স্ট্যাটাস দিল হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ।

প্রত্যেক ইউজারদের স্মার্টফোনেই হোয়াটসঅ্যাপের এই স্ট্যাটাস দেখতে পাওয়া গেছে।

১. ব্যক্তিগত তথ্য অন্যত্র তা প্রকাশ করার যে অভিযোগ উঠেছিল প্রথমেই সেই অভিযোগ নস্যাত করতে চেয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ।

২. স্পষ্ট জানিয়েছে ইউজারদের ফোন নম্বর তারা ফেসবুক বা গুগল কোথাও শেয়ার করছে না।

৩. হোয়াটসঅ্যাপ লোকেশন(location) শেয়ার করে না বলেই জানিয়েছে।

৪. ব্যক্তিগত কথা আ মেসেজের আড়ি পাতার যে অভিযোগ উঠেছিল তাও অস্বীকার করেছে হোয়াটসঅ্যাপ।

এছাড়াও অ্যাকাউন্ট বাতিল করা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছিল ইউজারদের। সেকারণে হোয়াটসঅ্যাপের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে অন্য সোশাল মিডিয়ার দিকে ঝুঁকছিলেন অনেকেই।

সে বিষয়েও টুইট করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। কী জানিয়েছে টুইটারে?

ফেসবুকের (Facebook) মালিকানাধীন সংস্থার তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে, যে তারিখের মধ্যে সবাইকে পলিসি আপডেটের বিষয়ে সম্মতি দিতে বলা হয়েছিল তা বাতিল করা হল।

আগের ঘোষণা অনুযায়ী, ৮ ফেব্রুয়ারি কারও অ্যাকাউন্টই ডিলিট করা হবে না। আপাতত হোয়াটসঅ্যাপ সমস্ত ইউজারদের ভুল ধারণাকে ভাঙানোর লক্ষ্যেই এগোবে।

হোয়াটসঅ্যাপের প্রাইভেসি ও তথ্যসুরক্ষার বিষয়ে সকলকে সঠিক ধারণা দেওয়ার পরে ধীরে ধীরে পলিসি রিভিউয়ের দিকে এগোনো হবে।

আগামী ১৫ মে তাদের নতুন বিজনেস অপশন আসার আগে ফের রিভিউয়ের কথা ভাবা হবে বলে জানানো হয়েছে।