হাঁটবেন নাকি পৃথিবীর স্বর্গপথে ?

0
102

দ্য পিপল ডেস্ক : দীর্ঘ একটি সেতুর নিচের দিকে তাকালেই গভীর নদী, জঙ্গল আর খাদ৷ একটু পা হড়কে গেলেই সোজা অতল নদীতে৷

দুরুদুরু বুকে এই টানা সেতুটা পার করতে হয়৷ এইমতাবস্থায় হাড় হিম হয়ে যাওয়া খুবই স্বাভাবিক। ব্যাপারটা দারুন আডভেঞ্চারাস তাই তো ?

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে :

এই আকাশে হাঁটার অনুভুতি পেতে হলে চিনের জিয়াংশু প্রদেশের অ্যাডভেঞ্চার পার্ক -এ একবার আস্তেই হবে৷

কি আছে এই পার্কে ?

এর উপর দিয়ে পার হতে গেলে স্নায়ু টানটান থাকা দরকার৷ মাটি থেকে অন্তত ১০০ মিটার উপরে একটি সেতু৷

পুরোপুরি স্বচ্ছ কাঁচের তৈরি৷ মনে হবে যেন, শূন্যে হাঁটছেন৷ এই অ্যামিউজমেন্ট পার্কে রয়েছে রকমারি রাইড এবং খুব সুন্দর ঘোরারা জায়গা।

তবুও এই পার্কটি মূলত বিখ্যাত এই ব্রিজটার জন্যই।

বলা যেতে পারে এই অ্যাডভেঞ্চার পার্কের মূল আকর্ষনই হল দীর্ঘ এই কাঁচের ব্রিজ।

দেশ বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর মানুষ ভিড় জামাচ্ছে এই স্বর্গ পথে হাঁটার জন্য।

তবে যাদের হৃদ রোগের সমস্যা আছে বা যাদের স্নায়ু দুর্বল তাঁদের এই ব্রিজে না ওঠাই শ্রেয়।      

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে 02

কি ম্যাজিক আছে এই ব্রিজে ?

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে 02

আসলে ম্যাজিকটা লুকিয়ে আছে ব্রিজের গঠনে। ৫১৮ মিটার স্বচ্ছ কাচ দিয়ে এই দীর্ঘ সেতুটি তৈরি হয়েছে৷

এই সেতুর উপর একসঙ্গে অন্তত ২৬০০ মানুষ হাঁটতে পারেন৷ সাড়ে তিন সেন্টিমিটার পুরু একেকটি কাচের প্লেট দিয়ে গোটা সেতুটা তৈরি৷

কাচের প্রকৃতি এমনই যে এর উপর পা ফেললে মনে হবে যেন মটমট করে একেকটি কাচের টুকরো ভেঙে পড়ছে৷ মূলত এই কারেনেই বুকটা ধুরপুর করে ওঠে৷

আরও পড়ুন

কিন্তু ভয়ের কোনও কারণ নেই৷ কাচ কাচের মতোই থাকে, কোথাও কিছু ভাঙে না৷ এমনকী ২৫০০ জন লোক একসঙ্গে হাঁটলেও কোনও বিপদ নেই৷

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে 03

এই মাসেই হুয়াজি ওয়ার্ল্ড অ্যাডভেঞ্চার পার্কে খুলে গিয়েছে এই সেতুটি৷ আর তারপর থেকেই ভিড় বেড়েছে পার্কে কাচের সেতুর উপর দিয়ে হাঁটার জন্য৷

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে 04

পৃথিবীর স্বর্গপথ চিনে, তবে রয়েছে কর্তৃপক্ষের সতর্কতা :

কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে, হৃদয় দুর্বল হলে মোটেই কাচের সেতুতে ওঠা চলবে না৷

উপরন্তু কেউ যদি এই ব্রিজে উঠে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়, এর কোনও দায় নেবে না কর্তৃপক্ষ৷

তাই মন শক্ত করে উঠে পড়ুন হুয়াজি অ্যাডভেঞ্চার পার্কের স্বচ্ছ কাচের সেতুতে৷ আর উপভোগ করুন মর্তে থেকে স্বর্গের রাস্তায় হাটার অনুভূতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here