মৃতের পরিবারের লোকেরা

দ্য পিপল ডেস্ক : হাসপাতালে চিকিৎসা না পেয়ে যন্ত্রণার হাত থেকে বাঁচবার জন্য আত্মহত্যা পথ বেছে নিল এক ব‌্যক্তি। ঘটনাটি ঘটেছে হরিদেবপুর থানার ধারাপাড়াতে।


ধারাপাড়ার বাসিন্দা গোপাল মন্ডল শনিবার নিজের বাড়িতে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করে। পরিবার থেকে জানা যাচ্ছে ৩৫ বছর আগে একটি দুর্ঘটনায় ডান পায়ে প্লেট বসেছিলো।


বেশ কয়েক দিন ধরে পায়ে ব্যথায় ভুগছিল। শনিবার পায়ের ব্যথা খুব বেড়ে যায়। পরিবারের লোকজন বেহালা বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে যায়।


অভিযোগ অনেকক্ষণ হাসপাতালে বসিয়ে রাখে ইমার্জেন্সিতে। দীর্ঘক্ষণ বসিয়ে রাখার পর হাসপাতাল থেকে জানায় চিকিৎসক আসবেন না।


অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথাও বলে দেয় হাসপাতাল থেকে।


পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো নয়, বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করানোর সামর্থ নেই।


বাধ্য হয়ে বাড়িতেই ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয় ওই ব্যক্তিকে।


যন্ত্রণার হাত থেকে বাঁচবার জন্য নিজের বাড়িতে একটি পরিত্যক্ত ঘরে গিয়ে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

পরিবারের লোকেরা দেখতে পেয়ে তড়িঘড়ি তাকে উদ্ধার করে কিন্তু তখন সব শেষ।


ছেলের এই অবস্থা দেখে বৃদ্ধ বাবা ভূতনাথ মন্ডল বাড়িতেই স্ট্রোক হয়ে মারা যায়। পরিবারে ছেলে ও বাবার এই মৃত্যুতে শোকের ছায়া।


পরিবারের দাবি যদি বিদ্যাসাগর হাসপাতালে চিকিৎসা পেত তাহলে এই ঘটনা ঘটত না।