||গৌতম ভট্টাচার্য||

বিজেপিকে মাত দিতে কুরবান শা-র খুনকেই হাতিয়ার করছে তৃণমূল। অন্তত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের ধারণা এমনই। বিজেপির অভিযোগ, সেই কারণেই কুরবান খুনে গ্রেফতার করা হয়েছে বিজেপি নেতা আনিসুর রহমান ঘনিষ্ঠ একজনকে।

নবমীর রাতে পাঁশকুড়ায় দলীয় কার্যালয়েই গুলি করে খুন করা হয় তৃণমূলের ব্লক কার্যকরী সভাপতি কুরবান শা-কে। ওই ঘটনায় নাম জড়ায় বিজেপি নেতা আনিসুর রহমানের। এর পরেই পুলিশ আনিসুরের খোঁজে তল্লাশি শুরু করে। তার আগেই অবশ্য আনিসুর ঘনিষ্ঠ একজনকে গ্রেফতারও করা হয়।

রাজ্যে পালাবদলের পরে ক্ষমতায় আসে তৃণমূল।বাম জমানার অবসান শেষে পাঁশকুড়ার রাশও চলে আসে ঘাসফুল শিবিরের হাতে।একছত্র অধিপতি হয়ে ওঠেন আনিসুর। পরে পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের পদ নিয়ে অশান্তির জেরে দল ছাড়েন মুকুল ঘনিষ্ঠ আনিসুর। পাঁশকুড়া পুরসভার চেয়ারম্যান হন অধিকারী পরিবারের ঘনিষ্ঠ নন্দ মিশ্র।

মুকুলের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দিয়ে এলাকায় সংগঠন বাড়ানোর কাজে মনোনিবেশ করেন আনিসুর। এরই কিছুদিন পরে নতুন একটি মামলায় গ্রেফতার করা হয় এই তরুণ তুর্কি নেতাকে। ছাড়া পাওয়ার পরেও ফের কোমর কষে নামেন ঘর গুছোতে।

আনিসুরের ক্যারিশ্মায় সদ্য সমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে পাঁশকুড়ায় লিড না পেলেও, ছাপ ফেলে পদ্মশিবির।২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে এগোতে শুরু করেন আনিসুর।

এলাকায় পদ্মের রমরমা ঠেকাতে উঠেপড়ে লাগে তৃণমূলও। কুরবানের নেতৃত্বে নানা নির্বাচনে লড়ে জয় পায় ঘাসফুল শিবিরও।আনিসুরকে মাত দিতে তৃণমূল কুরবানকেই লড়িয়ে দেয় বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা।

নবমীর রাতে আততায়ীদের হাতে খুন হন কুরবান। শুরু হয়ে যায় রাজনৈতিক তরজা। কুরবান খুনে বিজেপির হাত দেখতে পায় তৃণমূল। আর গোষ্ঠীকোন্দলের তত্ত্ব আওড়ায় ঘাসফুল শিবির। তৃণমূলের একটি সূত্রের খবর, কুরবানের দ্রুত উত্থান মেনে নিতে পারেননি দলেই কুরবানের বিরোধীরা।যদিও অল্প বয়সেই বিরোধীদের সমীহ আদায় করে নিয়েছিলেন তিনি।তৃণমূলের এই সূত্রের অনুমান, সেই কারণেই খুন হন কুরবান।

যদিও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের তত্ত্ব উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। তাদের দাবি, ঘটনার নেপথ্যে বিজেপি-ই।বিজেপির অভিযোগ, কুরবান খুনে আনিসুরের নাম জড়িয়ে আসলে এলাকায় বিজেপির কোমরই ভেঙে দিতে চাইছে তৃণমূল। সেই কারণেই খুনের ঘটনার সঙ্গে পাকেচক্রে আনিসুরকে জড়িয়ে দেওয়ার মরিয়া চেষ্টা করছে রাজ্যের শাসকদল।

বিজেপির এক নেতা বলেন, মানস ভুঁইয়াকে যেভাবে খুনের মিথ্যে মামলায় জড়িয়ে দিয়ে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দিতে বাধ্য করেছিল ঘাসফুল শিবির, ঠিক সেই একই কায়দায় আনিসুরকে জব্দ করার চেষ্টা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here