দ্য পিপল ডেস্ক : রাজ্যে পরিযায়ী ইউনিয়ন তৈরি করল বামেরা। পরিযায়ী শ্রমিকদের সমস্যা সমাধান করতে এবার নতুন করে আন্দোলনে নামতে চাইছে বাম ও কংগ্রেস।

ইতিমধ্যে একটি ইউনিয়ন তৈরি করা হয়েছে। ইউনিয়নের সম্পাদক হয়েছেন পঞ্চাশোর্ধ একজন পরিযায়ী শ্রমিক স্বয়ং।

সংগঠনের সভাপতি করা হয়েছে সিপিএমের বিধায়ক এসএম শাধীকে।

তিনি জানিয়েছেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য ১৯৭৯ সালের যে আইন রয়েছে, সেই আইনকে কাজে লাগিয়ে মাসে সাড়ে ৭ হাজার টাকা করে সহায়তা প্রদান করার দাবি তুলেছেন তারা।

উল্লেখ্য এক্ষেত্রে, যে শ্রমিকদের সহায়তা করা হবে তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। যে ঠিকাদাররা এই শ্রমিকদের অন্য রাজ্যে কাজের জন্য নিয়ে যান তাদেরও নাম নথিভুক্ত করা হচ্ছে।

নাম নথিভুক্ত করার পাশাপাশি জেলায় জেলায় নোডাল অফিসার নিয়োগ করার দাবি তুলেছেন তারা।

রাজ্যের কত সংখ্যক মানুষ অন্য কোনো রাজ্যে গিয়ে কাজ করছেন, কোথায় গিয়ে কাজ করছেন তার চূড়ান্ত হিসাব সরকারের কাছে নেই।

ইতিমধ্যে পুরুলিয়া শহর একাধিক জায়গায় বিডিও অফিসে ডেপুটেশন জমা করেছে বাম কংগ্রেস।

কলকাতা হাইকোর্টে কংগ্রেস নেতা নেপাল মাহাতোর একটি মামলায় হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়েছে, পুরুলিয়া ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটকে এই বিষয়ে তথ্য দিতে হবে।

উড়িষ্যা, ঝারখন্ড, কেরল অন্যান্য বিভিন্ন রাজ্য থেকে শ্রমিকরা ভিন রাজ্যে কাজ করতে যান।

পশ্চিমবাংলা থেকে বহু পরিযায়ী শ্রমিক ভিন রাজ্যে কাজ করেন। কিন্তু করোনার কারণে আটকে পড়া অনেকেই বিপদে পড়েছেন।

অনেক বিধায়ক এবং সাংসদ তাদের বিলিয়ে এনেছেন। কিন্তু তাদের জন্য পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করেনি। তাই সমস্যা মেটাতে এগিয়ে এসেছে সিপিএমের শ্রমিক সংগঠন সিটু।