দ্য পিপল ডেস্কঃ বাড়ছে হৃদরোগের ঝুঁকি। মাত্রাতিরিক্ত দূষণের জেরে প্রতিনিয়তই বাড়ছে ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যা।

এসব রোগবালাই আপনার কাছেই ঘেঁষতে পারবে না, যদি আপনি নিয়মিত সাইকেল চালান।

সাম্প্রতিক এক গবেষণায় মিলেছে এই তথ্য। প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে সাইকেল চালালে হৃদরোগ কিংবা ক্যান্সার আপনাকে দেখলে ভয়ে পালাবে!

জেন এক্স ক্রমেই ঝুঁকছে দামী স্কুটি-স্কুটার-বাইকে, দিন ফুরিয়ে আসছে সাইকেলের। এখন যাঁরা সাইকেল চালান, জেন এক্সের মতে, তাঁরা হয় সেকেলে, নয় গরিব।

গবেষণা বলছে, এই আয়েশী মানুষরাই বেশি করে আক্রান্ত হচ্ছেন হৃদরোগে। ক্যান্সারের মতো মারণ ব্যাধিও অকালেই থাবা বসাচ্ছে শরীরে। তাই সাইকেল চালানোর দাওয়াই দিয়েছেন গবেষকরা।

স্কটল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব গ্লাসগোর কয়েকজন গবেষক সাইকেল চালানোর উপকারিতা নিয়ে গবেষণা করতে শুরু করেন।

প্রায় পাঁচ বছর ধরে আড়াই লক্ষ মানুষের ওপর গবেষণা করেন তাঁরা। দেখা গিয়েছে, যাঁরা প্রতিদিন সাইকেল চালিয়েছেন তাঁদের হৃদরোগ এবং ক্যান্সার দুয়েরই সম্ভাবনা কমেছে।

গবেষকরা দেখেছেন, প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে সাইকেল চালালে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমে ৪৫ শতাংশ। হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও কমে ৪৬ শতাংশ।

গবেষকদের পরামর্শ, অফিস-কাছারি-স্কুল-কলেজ কিংবা হাট-বাজার যেখানেই যান বর্জন করুন স্কুটি-স্কুটার-বাইক কিংবা বাস-ট্রাম-ট্যাক্সি। কর্মস্থলে যেতে ব্যবহার করুন সাইকেল।

তাহলেই হৃদরোগ কিংবা ক্যান্সারের মতো মারণ ব্যাধিকে দূরে সরিয়ে রাখা যাবে আজীবন। এছাড়াও ফিট থাকবেন আমৃত্যু।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু-র রিপোর্টে প্রকাশ, আধুনিক বিশ্বে প্রতি ৮ জনের মধ্যে একজন ক্যান্সারে আক্রান্ত।

সেই কবে স্বয়ং রবীন্দ্রনাথ বলেছিলেন, দাও ফিরে সে অরণ্য, লও এ নগর। যান্ত্রিক সভ্যতা ছেড়ে প্রকৃতির কোলে ফিরে গেলেই বাড়বে আয়ু।

তাই ব্যাকডেটেড বলে ছুঁড়ে ফেলে না দিয়ে নতুন করে শুরু হোক সাইকেল প্রেম। এতে একদিকে যেমন বাড়বে আয়ু, তেমনি বাঁচবে মূল্যবান তেলের ভাণ্ডার।

 

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here