দ্য পিপল ডেস্কঃ করোনার জেরে প্রায় একবছর বন্ধ ছিল তারকেশ্বরের গর্ভগৃহ।
একবছর ধরে পুণ্যার্থীরা প্রবেশ করতে পারেননি তারকেশ্বরের গর্ভগৃহে।
অবশেষে বুধবার থেকেই মন্দিরের গর্ভগৃহে প্রবেশ করে শিবলিঙ্গে জল ঢালতে পারবেন পুণ্যার্থীরা।
এদিন সকাল ৮টায় খুলে দেওয়া হয়েছে গর্ভগৃহের দরজা। খোলা থাকবে দুপুর ২টো পর্যন্ত।
জানা গিয়েছে, করোনা বিধি মেনেই মন্দিরে রয়েছে পুজোর ব্যবস্থা।
সামাজিক দূরত্ব মেনে ৬ জন করে পুণ্যার্থী প্রবেশ করতে পারবেন গর্ভগৃহে।
মন্দির চত্বরে থাকছে পুলিশ প্রহরাও। মাস্ক ও স্যানিটাইজার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
তারকেশ্বর মন্দিরের মহন্ত দন্ডীস্বামী সুরেশ্বর মহারাজ জানিয়েছেন, পুজোর প্রসাদের ক্ষেত্রে বরাবরের মতোই শুকনো প্রসাদ দেওয়া হবে।
পুরোহিতরাই প্রসাদ দেবেন। করোনার জন্য লকডাউনের আগে থেকে পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল তারকেশ্বরের মন্দির।
১১ এপ্রিলের ঘোষণা অনুযায়ী বন্ধ থাকে গাজন ও শ্রাবণের মেলাও।
সরকারি বিধিনিষেধ মেনে ১ জুন বেশ কিছু ধর্মীয় স্থান খোলা হলেও বন্ধ রাখা হয়েছিল তারকেশ্বরের মন্দির।
অবশেষে গত ৪ সেপ্টেম্বর করোনা বিধি মেনে খোলা হয় তারকেশ্বর মন্দির।
তবে গর্ভগৃহে প্রবেশ নিষিদ্ধ ছিল। বুধবার থেকে সেই ব্যবস্থাও চালু হয়ে গেল।