দ্য পিপল ডেস্কঃ যতই সময় যাচ্ছে, ততই ম্লান হচ্ছে টি-২০ বিশ্বকাপের ভাগ্য।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান আর্ল এডিংসের কথা থেকে স্পষ্ট, বর্তমান পরিস্থিতিতে টি-২০ বিশ্বকাপ হওয়া বেশ কঠিন।

টি-২০ বিশ্বকাপের সম্ভাবনা ম্লান হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই গাঢ় হচ্ছে আইপিএলের ভবিষ্যৎ।

টি-২০ বিশ্বকাপ না হলে, এশিয়া কাপও না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। সেক্ষেত্রে আরও মসৃণ হবে আইপিএল-এর সম্ভাবনা।

সেপ্টেম্বরের শেষে শুরু হতে পারে আইপিএল। সেপ্টেম্বরে হওয়ার কথা ছিল এশিয়া কাপ।

টি-২০ বিশ্বকাপের নির্ধারিত সময় অক্টোবর-নভেম্বর মাসে আইপিএল করতে মরিয়া মিলিয়ন ডলার ক্রিকেট লিগের গভার্নিং বডি।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার তরফে টি-২০ বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন তুলে দেওয়ায়, আরও জোড়ালো হয়েছে বিসিসিআই-এর সুর।

আর্ল এডিংস জানিয়েছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে ১৬টি দেশের ক্রিকেটাররা অস্ট্রেলিয়ায় আসবে, তা অত্যন্ত অবাস্তব মনে হচ্ছে।

যে দেশগুলোয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে, সেই দেশের ক্রিকেটারদের নিজেদের দেশের আনারও বিরোধী রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার একাংশ।

টি-২০ বিশ্বকাপ তাই পিছিয়ে যাচ্ছে ধরে নিয়েই বোর্ড কোষাধক্ষ্য অরুণ ধুমল সুর চড়িয়ে বলেছেন, যদি আয়োজক দেশই স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয় করোনা

পরিস্থিতির জন্য টি-২০ বিশ্বকাপ হওয়া অসম্ভব, তাহলে আইসিসি কেন অযথা সময় নষ্ট করছে? কেন আগামী মাস পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করা হচ্ছে?

এশিয়া কাপের সময় থেকে আইপিএল শুরু করা গেলে, প্রতিবারের মতো চেনা ফরম্যাটেই খেলা হতে পারে।

যতই দেরিতে লিগ শুরু হবে, ম্যাচের সংখ্যাও কমতে থাকবে। পাশাপাশি কমবে লাভের পরিমাণও।

সেকথা মাথায় রেখেই ৪০০০ কোটি টাকার ক্ষতি এড়াতে যেনতেন প্রকারেন দ্রুত আইসিসির সিদ্ধান্ত জেনে আইপিএল-এর জন্য ঝাঁপাতে মরিয়া বিসিসিআই কর্তারা।