দ্য পিপল ডেস্কঃ আপাতত বন্ধ করা হল চন্দ্র অভিযান। যান্ত্রিক সমস্যার দরুন ১৫ তারিখ পাড়ি দেবার কথা থাকলেও বাতিল করা হল চন্দ্রযান-২ এর অভিযান । এই অভিযান কবে হবে সে সম্পর্কে এখনও কিছু জানাননি ইসরোর কর্তারা। তাঁরা জানান, সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখে তার পরই এই অভিযান দিন ঘোষনা করা হবে।তবে, আগামী অগাস্ট মাসে পাঠানো হতে পারে চন্দ্রযান-২ কে । 

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

গত ১৫ জুলাই চন্দ্রযান-২ অভিযানের দিন ঠিক করা হয়েছিল। তবে যাত্রার আগে কিছু যান্ত্রিক সমস্যার কারণে বাতিল করা হয় অভিযান। ইসরোর সুত্র খবর, রবিবার রাতে শ্রীহরিকোটায় রকেটের অতিশীতল জ্বালানির ট্যাঙ্কের একটি সমস্যার দেখা মেলে। ট্যাঙ্কের ভিতরে জ্বালানি কে উচ্চচাপে রাখা হয়। কিন্তু ওই চাপের কারণে জ্বালানি বেরোতে থাকে বলে জানান ইসরোর তরফ থেকে।

এই সমস্যার কারণে সমস্ত জ্বালানি পুনরায় বার করে খতিয়ে দেখতে হবে বলা জানান হয়। এই কাজে অনেক দিন সময় লেগে যাবে। মহাকাশ বিজ্ঞানীরা বলেন, এর পরেও রকেটটি অভিযানে না পাঠিয়ে আরও গভীর ভাবে পরীক্ষা করে তবেই পাঠান উচিত । তা না হলে গবেষনার উদ্দেশ্য ব্যর্থ হতে পারে বলে জানান।  

পৃথিবী ও চাঁদের দিন রাত্রির ফারাক রয়েছে। পৃথিবীর ২৮ দিন মিলে চাঁদের এক দিন হয়। তাই ইসরো ১৫ জুলাই চাঁদের উদ্দেশ্যে রওনা দিতে চেয়েছিল। হিসাব অনুযায়ী ৬ সেপ্টেম্বর রাতে পৌঁছালেও ৭ তারিখ চাঁদে সকালের আলো দেখত ল্যান্ডার বিক্রম। ১৪ দিনের এই দিনের আলোয় কাজ করতে পারত ইসরো। তার জন্য ৫৩-৫৪ দিন আগে পাঠাতে হয় ।

কিন্তু, এরপরের দিন হিসেবে কাজ করতে হলে দুর্গাষ্টমী ৬ অক্টোবর । তার আগে পাঠানো মানে স্বাধীনতা দিবসের আগেই পাঠাতে হবে চন্দ্রযান-২কে । 

ইসরোর বিজ্ঞানীদের দাবি, যাত্রার আগে ত্রুটি খুঁজে পেয়ে মঙ্গল হয়েছে। তাঁরা জানান, এই সমস্যা আগে না ধরা পড়লে গবেষনার ফল বিফলে যাওয়ার পাশাপাশি প্রকল্পের পুরো টাকাটাও নষ্ট হত। এই প্রকল্পের জন্য প্রায় ৯৭৮ কোটি টাকা খরচ হয়েছে বলে জানান তাঁরা।