..স্নেহাশ্রী বিশ্বাস..

নাহ্ বিশ্বাস হচ্ছে না। রিল লাইফের মহেন্দ্র সিংহ ধোনি আর নেই। যেন ঘোর কাটছে না! সর্বনাশা ২০২০ কেড়ে নিল আরও একটা প্রাণ।

১৯৮৬ সালে জন্মানো সুশান্ত সিং রাজপুত নিজের বান্দ্রার বাড়িতে আত্মহত্যা করলেন, সম্ভাবনাময় অভিনেতার জীন শেষ হয়ে গেল মাত্র ৩৪ বছর বয়সেই।

কাই পোচে সিনেমা দিয়ে অভিষেক করলেও মহেন্দ্র সিংহ ধোনি বায়োপিক দিয়েই যেন তাঁর জীবন বদলে যায়। অভূতপূর্ব সাড়া পাওয়ার পর তাঁকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। কিন্তু অবসাদ কেড়ে নিল সেই তরতাজা প্রাণটিকে।

বেশ কিছুদিন ধরেই মানসিক অবসাদের ভুগছিলেন। তবে এমন একটা সিদ্ধান্ত নেবেন সেটা কেউই আন্দাজ করতে পারেননি। পরিচারিকার থেকে জানা গেছে, সকাল ১০ টাতেও সুশান্ততে ফলের জুস খেতে দেখেন। তার পর ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন।

প্রায় ঘন্টা দুয়েক সাড়া না মেলায় দরজায় কড়া নাড়েন পরিচারিকা। বান্দ্রার যে বাড়িতে সুশান্ত থাকতেন তার ভাড়া ছিল সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা। কাজ না থাকায় টাকাপয়সা নিয়ে কোনও সমস্যা চলছিল? কাউকেই কিছু জানাননি সুশান্ত।

বলিউড যেমন শোকস্তব্ধ তাঁর মৃত্যুতে। একইরকম শোকস্তব্ধ ক্রীড়াজগত। মাহির প্রাক্তন সতীর্থ রবিচন্দ্রন অশ্বিন বিশ্বাসী করতে পারছেন না এই খবর। এদিকে টুইটারে ভারতীয় দলের ক্রিকেটার শিখর ধাওয়ান লেখেন, অবাক হচ্ছি এবং বিশ্বাস হচ্ছে না। ওঁর পরিবারকে সমবেদনা। তাঁর আত্মা শান্তি পাক।

পরিচালক অরুণ পণ্ডিয়া লেখেন, হতবাক। ওঁর আত্মা শান্তি পাক। ওঁর প্রিয়জনদের সমবেদনা। হরভজন সিংহ লেখেন, কেউ বলো এই খবরটা মিথ্যে। বিশ্বাসী হচ্ছে না সুশান্ত সিং রাজপুত আর নেই।

সুরেশ রায়না লেখেন, খবরটা শুনে হতবাক হয়ে গেলাম। ধোনির বায়োপিকের সময় ওঁর সঙ্গে অনেকটা সময় কাটিয়েছি। আমরা এক সদাহাস্য অভিনেতাকে হারালাম।

ইরফান পাঠান লেখেন, আমি হতবাক এবং গভীর মর্মাহত সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যুর খবরে। ওঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা রইল। আরেক প্রাক্তনী আকাশ চোপড়া লিখেছেন, হে ভগবান। সুশান্ত সিং রাজপুত আর নেই। আমি হতবাক।