১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি অনুপম হাজরা -র

0
43

দ্য পিপল ডেস্কঃ সকালে অমিত শাহর জনসভা বাতিল হয়েছে বারুইপুরে, দুপুরের পরই চরম উত্তেজনা ছড়াল এলাকায়।  আজ সকালে নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়ে আক্রান্ত হন যাদবপুর কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা ।এরপরে নির্বাচন কমিশনের দফতরে উপস্থিত হন অনুপম হাজরা।

অনুপম হাজরা এর দাবি, বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে সভা করতে দেওয়া তো হলই না উল্টে সভাস্থলে থাকা বিজেপি কর্মীদের মারধর করা হয়, বোমাবাজি করা হয়। অভিযোগের তীর তৃণমূলের দিকে।

অভিযোগ, অমিত শাহর সভা বাতিল হওয়ার পর আটঘড়া এলাকার ওই মঞ্চে সভা করছিলেন অনুপম হাজরা -রা। ওই জায়গায় মিছিল নিয়ে আসে তৃণমূল কর্মীরা।

তার পরই শুরু হয় উত্তেজনা। উপস্থিত বিজেপি কর্মীদের মারধর, গালিগালাজ করতে শুরু করে তৃণমূল কর্মীরা। কিন্তু পুলিশ কোনও ভূমিকা নেয়নি।

মাদারহাট, কালিতলা, শীতলকুণ্ডি, আটঘড়া এলাকায় ২০ থেকে ২৫ টা গাড়ি ভাঙডুড় করা হয় বলে অভিযোগ অনুপমের।

গেরুয়া ওড়না টেনে, মহিলাদের গায়েও হাত তোলা হয় বলে অভিযোগ। অনেক কর্মী আহত হয়ে বারুইপুর হাসপাতালে ভর্তি বলে জানান তিনি।

নিজের উপর আক্রমণ, বিজেপি কর্মীদের মারধর এবং অমিত শাহর জনসভার অনুমতি না দেওয়ায় আজ নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হন অনুপম হাজরা।

১০০ শতাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি অনুপম হাজরা -র

প্রাণ বাঁচাতে বাধ্য হয়ে কর্মীদের নিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন বলে জানান অনুপম হাজরা।

নির্বাচন কমিশনের সামনে দাঁড়িয়ে অনুপমের বক্তব্য, বিজেপি কর্মীদের মারার ঘটনায় পুলিশ নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে।

অনুপমের দাবি, সপ্তম দফা ভোটে ১০০ শতাংশ বুথে সিআরপিএফ বাহিনী দিয়ে ভোট করাতে হবে।

আজ থেকেই বাহিনীর রুটমার্চ চালু করতে হবে, যাতে সাধারণ মানুষ নিজের ভোট নিজে দিতে পারবেন এ বিষয়ে আশ্বস্ত হন।

নিরপেক্ষভাবে কাজ করবেন এমন পুলিশ অফিসার নিয়ে আসতে হবে।

তবে ১০০ শতাশং বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here