দ্য পিপল ডেস্কঃ সড়ক সুরক্ষা বিষয়ক তিন দিন ব্যাপি আলোচনাসভা শুরু হয়েছে আগরতলায়। বুধবার  প্রজ্ঞা ভবনে এই আলোচনা সভার সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী ।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

ত্রিপুরা পুলিশের উদ্যোগে এবং ভারতের জাতীয় রাজধানী দিল্লীর ‘ইষ্টিটিউট অব রোড সেফটি এডুকেশনের সহযোগিতায় হয় আলোচনাসভা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পরিবহন মন্ত্রী প্রাণজীৎ সিংহ রায়, রাজ্যের মুখ্যসচিব ইউ ভেঙ্কটেশ্বরলু, ইষ্টিটিউট অব রোড সেফটি এডুকেশনের সভাপতি ড: রোহিত বালুজা, ত্রিপুরা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত মহানির্দেশক রাজীব সিংসহ সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

এদিন কর্মশালার উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব বলেন, “দেশের শতকরা যত যানবাহন রয়েছে তার দ্বিগুন রয়েছে ত্রিপুরা রাজ্যে। গত আট বছরে ত্রিপুরা রাজ্যে এই সংখ্যা দ্রুত হারে বেড়েছে। রাস্তা তৈরি করার ট্রাফিক ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। বাস্তবে সব ধরনের পরিকল্পনা করে তারপর রাস্তা তৈরি করতে হবে। তবেই সড়ক দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব।” পাশাপাশি দুর্ঘটনা সংক্রান্ত সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টেরও দাবী জানিয়েছেন তিনি।   

সড়ক সুরক্ষার জন্য রাজ্যের ক্লাবগুলিকে আলাদা করে উদ্যোগ নেওয়ার কথাও উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্রী। সড়ক নিরাপত্তার জন্য সকল অংশের মানুষদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

অন্যদিকে, পরিবহনমন্ত্রী প্রাণজীৎ সিংহরায় জানান, সড়ক দুর্ঘটনা কমানোর জন্য পরিবহন দফতর, পূর্ত দফতর এবং ত্রিপুরা পুলিশের ট্রাফিক ইউনিট কাজ করে যাচ্ছে। নতুন সরকার আসার পর কাজে গতি বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। গত এক বছরে রাজ্যে ৫৫২ সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২৩১ জন।অধীকাংশ দুর্ঘটনা মোটর বাইকের ঘটেছে বলেও জানান তিনি।  মোটর বাইকের কারণে অন্য যানবাহনও দুর্ঘটনায় পড়ছে। দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য গতিনিয়নন্ত্রক ডিভাইস বসানোর কথাও জানিয়েছেন তিনি।