দ্য পিপল ডেস্ক: একটানা বৃষ্টির পর আকাশে রোদের দেখা মিলেছে। কখনও হালকা তো কখনও ভারী বৃষ্টির জেরে নাজেহাল অবস্থা রাজ্যবাসীর। চলতি মরশুমে সঠিক সময় বর্ষা না আসায় খরার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল দেশজুড়ে। সময়ের থেকে অনেক দেরিতেই দেখা মিলেছে বর্ষার। 

দুর্গাপুজোর প্রাক্কালে মেঘের এই বেহাল দশা মেনে নিতে পারছেন না সাধারণ বাঙালি থেকে শুরু করে ব্যবসায়ীরা। এমনকি পুজো উদ্যোক্তরাও। কিন্তু এবছরে দেরিতে বর্ষার দেখা মেলায় তাই বৃষ্টি যেতে  দেরি হবে বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করছেন আবহাওয়াবিদরা। 

মঙ্গলবার তৃতীয়ার সকাল থেকে রোদঝলমলে আকাশ দেখা গেলেও তাঁর স্থায়িত্ব নিয়ে যথেষ্ট আশঙ্কায় আবহাওয়াবিদরা। কিন্তু কবে বিদায় নেবে নিম্নচাপের বৃষ্টি? তা নিয়ে সঠিকভাবে কিছু জানায়নি আবহাওয়া দফতর। তবে কিছুটা হলেও  খুশির খবর শোনাল হাওয়া অফিস।

আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী কয়েকদিনে আবহাওয়ার খানিকটা উন্নতি হবে দক্ষিণবঙ্গে। তবে বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হতে পারে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জায়গায়। আংশিক মেঘলা থাকবে আকাশ।সেইসঙ্গে বাতাসে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকবে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস ।

 মঙ্গলবার থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ অনেকটাই কমবে জানিয়েছেন আবহাওয়াবীদরা । তবে বিহার, ঝাড়খন্ড, পশ্চিম বর্ধমান, মুর্শিদাবাদ ও বীরভূম সংলগ্ন এলাকায় ভারি বৃষ্টির সতর্কতা জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

উল্লেখ্য, পাঞ্জাব থেকে অসম পর্যন্ত তৈরি হয়েছে একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা। এখন   নিম্নচাপ দক্ষিণ থেকে সরে উত্তরে গিয়েছে। এর জেরেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে। তবে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। 

আলিপুরদুয়ারে কয়েক পশলা বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, কালিম্পংয়ে বিক্ষিপ্ত ভাবে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here