দ্য পিপল ডেস্কঃ  মঙ্গলবার ত্রিপুরার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা থেকে দুইজন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে বিএসএফ জওয়ানরা। ধৃত ওই ২ জনের নাম মহম্মদ সেলিম (২১) ও জাহাঙ্গীর আলম (২০)।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

মঙ্গলবার ধৃতদের আদালতে তোলা হয়েছে। পশ্চিম ত্রিপুরা জেলার রাজনগর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে বিএসএফ জওয়ানরা। পুলিশ সূত্রে খবর, ওই ২ ব্যক্তির কাছে বৈধ কাগজপত্র না মেলায়  তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে বাংলাদেশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কার্ড পাওয়া গেছে ২ জনের কাছ থেকেই।

স্থানীয় সূত্রে খবর, সকাল থেকেই ওই ২ ব্যক্তিকে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। সন্দেহ হওয়ায় তাঁরাই খবর দেন বিএসএফ জওয়ানদের।

তদন্তকারী পুলিশ অফিসার সহদেব ভৌমিক জানিয়েছেন, অনেকে বাংলাদেশি কাজ খুঁজতে এদেশে চলে আসেন। এই ২ ব্যক্তিও হয়ত সেজন্য এসেছিল। তবে আসল ঘটনা জানতে তদন্ত শুরু হয়েছে।

২০১৭ থেকে মায়ানমারের রোহিঙ্গারা ছড়িয়ে পড়তে থাকেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। অভিযোগ, মায়ানমার পুলিশের অত্যাচারের হাত থেকে প্রাণ বাঁচতে নিজেদের জন্মভূমি ছেড়ে পালাতে থাকেন লক্ষ লক্ষ রোহিঙ্গা। অন্য দেশে গিয়ে উদ্বাস্তু হয়ে থাকতে শুরু করেন রোহিঙ্গারা।

অত্যাধিক ভার হওয়ায় মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে রোহিঙ্গা ভরতি বেশ কয়েকটি নৌকা ডুবে যায়। বিশ্বজুড়ে নিন্দা ও সমালোচনার মুখে পড়়ে মায়ানমার সরকার।        

অন্যান্য দেশে গিয়ে রোহিঙ্গারা ডেরা বাঁধতেই উঠে আসে একাধিক ইসু। বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সমস্যা নিয়ে সেদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে দরবার জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক আদালতে। ভারতের প্রধানমন্ত্রীও এদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বৈঠক করেছেন মায়ানমারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে।

রোহিঙ্গা সংখ্যালঘুদের সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ ও নিপীড়নের অভিযোগে প্রশ্নের মুখে পড়েন শান্তিতে নোবেল জয়ী মায়ানমারের অন্যতম মুখ আন সাং সুকি। তবুও রোহিঙ্গা সমস্যা এখনও অধরা।