দ্য পিপল ডেস্কঃ সারাদিন কাজের ফলে পেশীতে টানের সমস্যা দেখা দিতে পারে। শরীরে রক্ত চলাচলের সমস্যার কারণে এই সমস্যা হয় বলে জানাচ্ছেন পুষ্টিবিদরা। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে শরীরে কার্বোহাইড্রেড, প্রোটিন ও ফ্যাটের পাশাপাশি ভিটামিন ও মিনারেলের প্রয়োজন একই মাত্রায়।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

পাশাপাশি শরীর সুস্থ রাখতে প্রয়োজন ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও আয়রন বলে জানাচ্ছেন পুষ্টিবিদরা। শরীরে এই উপাদান গুলি না থাকলে একাধিক সমস্যা দেখা দেয়। পুষ্টিবিদদের মতে, যে সব খাবারে এই উপাদানগুলি রয়েছে সেগুলি আমাদের খাওয়া উচিৎ। শরীরে সঠিক পরিমানে এই উপাদান গুলি থাকলে শরীরকে সুস্থ রাখা সম্ভব।

দেখে নেওয়া যাক ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও আয়রন শরীরে ঘাটতি থাকলে কী সমস্যা হতে পারে …   

ফসফরাস –আমাদের শরীরে ফসফরাসের ঘাটতি দেখা দিলে দাঁত দুর্বলের পাশাপাশি শরীর ওজন কমিয়ে দিতে পারে। দুর্বল হয়ে যেতে পারেন শরীরে ফসফরাসের ঘাটতির ফলে। পুষ্টিবিদদের মতে আমাদের শরীরে ক্যালসিয়ামের মতো একই মাত্রায় প্রয়োজন ফসফরাস।

দুধ, পনির,খেজুর,সয়াবিন,গাজর,মাছ ও মাংস থাকে অনেক পরিমানে এই উপাদান। শরীরে ফসফরাসের ঘাটতি দূর করতে এই খাবার খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদেরা। একজন ব্যক্তি শরীর সুস্থ সবল রাখতে প্রতিদিনে ৮০০ মিলিগ্রাম ফসফরাসের প্রয়োজন বলে জানান পুষ্টিবিদরা।

পটাশিয়াম – শরীর সুস্থ-সবল রাখতে অন্যতম ভূমিকা পালন করে পটাশিয়াম। শরীরে কার্বহাইড্রেট ও প্রোটিন জাতীয় খাবারের হজমে কাজ করে পটাশিয়াম। পুষ্টিবিদদের মতে পটাশিয়ামের অভাবে হার্ট অ্যাটাকের মতো ঝুঁকি দেখা দেয়। পাশাপাশি যাদের মাংসপেশি দুর্বল, মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রজনন ক্ষমতা, রক্তে পিএইচ-এর মাত্রা কমে যেতে পারে পটাশিয়ামের অভাবে।

তাজা ফল, রসুন, দুধ, মুলো, আলু ও মাংসে পটাশিয়াম থাকে। পটাশিয়ামের ঘাটতি কমাতে এই খাবার গুলির পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদরা। পাশাপাশি শরীর সুস্থ রাখতে প্রতিদিন খাবারে ২৫০০ মিলিগ্রাম পটাশিয়াম থাকা জরুরি বলে জানাচ্ছেন পুষ্টিবিদরা।

সোডিয়াম – শরীরে সোডিয়াম কম থাকার ফলে স্মৃতি লোপ হতে পারে বলে জানাচ্ছে পুষ্টিবিদরা। পাশাপাশি শরীরে সোডিয়ামের অভাবে মাংসপেশি দুর্বলের ফলে শরীরে নানা যন্ত্রণা হয় বলে জানাচ্ছেন তাঁরা।

নুন সহ দুধ, ডিম, মাংস, মাছে থাকে অনেকটা পরিমাণ সোডিয়াম। শরীর সুস্থ রাখতে ও সোডিয়ামের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে এই খাবার গুলি খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদরা।    

আয়রন – শরীরে রক্তে আয়রনের পরিমাণ কম থাকলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। শরীর সুস্থ রাখতে আমাদের শরীরে প্রতিদিন ১০ মিলিগ্রাম আয়রনের প্রয়োজন বলে জানাচ্ছেন তাঁরা। আয়রনের পরিমাণ রক্তে কম থাকার ফলে কোষে রক্ত চলাচল কম হয়। কোষে রক্ত চলাচন সঠিক ভাবে না হলে শ্বসকষ্টের কারণে মৃতুও হতে পারে।

থোড়, ডুমুর, সোয়াবিন, খেজুর,বেদানা, আম ও ডিমে প্রচুর পরিমানে আয়ন থাকে। শরীরে আয়রনের পরিমাণ ঠিক রাখতে এই খাবারগুলি খেতে পরামর্শ দিচ্ছেন পুষ্টিবিদরা।