প্রতীকী ছবি

দ্য পিপল ডেস্কঃ করোনা ভাইরাসের বাড়বাড়ন্ত ও লকডাউন, এই দুইয়ের জোড়া ফলায় দেশের সাধারণ মানুষের মত চরম সমস্যায় পড়েছেন যৌনকর্মীরা।

করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে যৌনপল্লীতে ‘খদ্দের’এর সংখ্যা একেবারে ছিল না বললেই চলে।

ফলে কাজ হারিয়ে দেশের লক্ষ লক্ষ যৌন কর্মীর আয়ের অঙ্ক ঠেকেবারে তলানিতে ঠেকে।

এই নিয়ে দায়ের করা একটি মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে যৌন কর্মীদের বিনামূল্যে রেশনের সুবিধা দিতে হবে।

সুপ্রিম নির্দেশ অনুযায়ী, যাতে প্রত্যেক যৌন কর্মী রেশন পান সেই দায়িত্ব নিতে হবে দেশের প্রত্যেক রাজ্য সরকারকে।

আগামী সাতদিনের মধ্যে এই নির্দেশ বলবৎ করতে হবে, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের।

কেন্দ্রীয় সরকারকে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছে, কেন্দ্রীয় বিপর্যয় মোকাবিলা আইন ব্যবহার করে খাবার ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস দিতে হবে যৌন কর্মীদের।

কার্ড না থাকলেও যাতে প্রত্যেক যৌন কর্মী রেশনের জিনিস পান সেদিকে বিশেষ উদ্যোগী হওয়ার কথাও বলেছে সুপ্রিম কোর্ট।

যদিও এরাজ্যে নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী শশী পাঁজা অনেক আগেই উদ্যোগ নিয়েছিলেন যাতে রাজ্যের সমস্ত যৌন কর্মীকে সাহায্য করার কাজ দ্রুত ও সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করা যায়।

এডস নিয়ন্ত্রণের কাজ করা কেন্দ্রীয় সংস্থা ন্যাটোর হিসেব অনুযায়ী দেশে যৌন কর্মীর সংখ্যা সাড়ে ৮ লক্ষেরও বেশি।

মার্চে করোনার প্রকোপে লকডাউন ঘোষণা হওয়ায় প্রত্যেক যৌন পল্লীতে ‘খদ্দের’এর সংখ্যা কমতে থাকে।

প্রায় ৬ মায় ধরে চলা লকডাউনের ফলে না খেতে পেয়ে মরার অবস্থায় অনেক যৌন কর্মীর।