সীমান্তে পাক পিলার নিকেশ 01

দ্য পিপল ডেস্ক: স্বাধীনতা অর্জন হয়েছে ৪৮ বছর। পাকিস্তান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে বাংলাদেশ তৈরির পরেও আন্তর্জাতিক সীমান্তের পিলারগুলিতে ছিল পাকিস্তান নামটি।

সীমান্তে পাক পিলার নিকেশ,নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ফলে তৈরি হচ্ছিল বিড়ম্বনা। অবশেষে শেখ হাসিনার বিশেষ নির্দেশে এই ৮০০০ পিলার থেকে কাটা পড়ল পাকিস্তান শব্দটি।

নতুন করে লিখে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ।ভারতের সঙ্গে লাগোয়া সর্বসাকুল্যে ৮ হাজার সীমান্ত পিলার থেকে মুছে গেল পাকিস্তান নামটাই।

তার বদলে লেখা হয়েছে বাংলাদেশ। এমনই উদ্যোগ সম্পন্ন করার জন্য নিজের দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনি বিজিবি-কে ধন্যবাদ জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) জানিয়েছে, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, অসম, মেঘালয়, ত্রিপুরা, মিজোরাম লাগোয়া বাংলাদেশ সীমান্তের সাতক্ষীরা, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ, পঞ্চগড়, কুড়িগ্রাম, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ, জামালপুর, সুনামগঞ্জ, সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম সীমান্তের বহু পিলারে PAKISTAN/PAK লেখা মুছে দেওয়া হয়েছে।

সীমান্তে পাক পিলার নিকেশ,সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

এই সীমান্ত স্তম্ভগুলি ছিল পুরনো অবিভক্ত পাকিস্তানের।  ১৯৪৭ সালে ভারত ভেঙে তৈরি হয় পাকিস্তান।

সেই অখণ্ড পাকিস্তানের দুটি অংশ।  একটি পশ্চিম পাকিস্তান অন্যটি পূর্ব পাকিস্তান। পূর্ব দিকের অংশে বাংলাভাষীরা সংখ্যাগুরু।

এই বাংলা ভাষাকে জোর করে দাবিয়ে রাখার প্রতিবাদেই জন্ম নেয় তীব্র পাক সরকার বিরোধী আন্দোলন।

সেই রেশ ধরে রক্তাক্ত মুক্তিযুদ্ধ শেষে ১৯৭১ সালে আত্মপ্রকাশ করে বাংলাদেশ।

বিজিবি জানাচ্ছে, দেশ ভাগের পর থেকে ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত পিলারগুলিতে লেখা ছিল  IND-PAK শব্দ।

কিন্তু বাংলাদেশ তৈরির পরেও সেরকম বহু সীমান্ত পিলার থেকে গিয়েছিল। ফলে সীমান্ত এলাকায় থাকা বাসিন্দারা বিব্রত বোধ করতেন।

বিষয়টি নজরে আসতেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দেন।

ওই সব বিতর্কিত সীমান্ত পিলার থেকে পাকিস্তান শব্দটি মুছে দিতে হবে। সেই মতো কাজ শুরু করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here