দ্য পিপল ডেস্কঃ  জীবনে প্রথম বাছাই পর্বেই রিজেক্ট হয়ে গিয়েছিলেন ক্রিকেটের ঈশ্বর সচিন তেন্ডুলকর। সেই রিজেক্সনই তাঁকে আরও উদবুদ্ধ করেছিল। 

শুক্রবার পশ্চিম মহারাষ্ট্রের একটি স্কুলে এসেছিলেন মাস্টার ব্লাস্টার। সেখানে তিনি জানান, ছোটবেলা থেকেই ভারতের হয়ে খেলার কথাই চিন্তা করতেন তিনি। এই ক্রিকেট যাত্রা শুরু হয় ১১ বছর বয়স থেকে। আমি প্রথমবার সিলেকশনে নির্বাচিত হতে পারিনি। নির্বাচকরা জানান যে আরও কঠোর পরিশ্রম করে নিজের খেলাকে উন্নতি করতে হবে। 

তিনি আরও জানান, প্রথমবার প্রচুর আশা নিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু রিজেক্ট হওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। মনে করতাম আমি ভালো ব্যাট করি। তবে নিজের স্বপ্নকে স্বার্থক করতে আরও হার্ড ওয়ার্ক করেছিলাম।   

রাজ্যসভার সদস্য থাকাকালীন এই স্কুলে ৩টি ক্লাসরুম ও ১টি সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য একটি মঞ্চ তৈরি করে দিয়েছিলেন সচিন।

আর্ন্তজাতিক ক্রিকেট জীবনে টেস্ট ক্রিকেটে ১৫,৯২১ রান ও একদিনের ক্রিকেটে ১৮,৪২৬ রান করেছেন মাস্টার ব্লাস্টার।

এই দীর্ঘ সফল ক্রিকেট জীবনের সফরে সর্বসময় পাশে ছিলেন কোচ রামাকান্ত আচারেকর ও তাঁর পরিবার।  সচিন জানান, তাঁর কেরিয়ারের সফলতার জন্য পরিবারের গুরুত্ব অপরিসীম বাবা, মা ভাই ও দাদা ছাড়াও তাঁর দিদির ভূমিকা যথেষ্ঠ গুরুত্বপূর্ণ । কারণ ক্রিকেটে প্রবেশের পর প্রথম ব্যাটও কিনে দিয়ে ছিলেন তিনি।         

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here