দ্য পিপল ডেস্ক : টানা দুদিন বৃষ্টির ফলে কলকাতার শহর ও শহরতলির বহু রাস্তায় খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।


বৃহস্পতিবার সকালেই হাওড়ার লিলুয়ার ছবি টুইট করে মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী ইমন চক্রবর্তী।


একই ছবি কলকাতার বিভিন্ন এলাকার। কবে ঠিক হবে এই সব? পুজোর আগে হবে কি? উত্তর দিলেন কলকাতা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম।


আগামী সাত দিনের মধ্যে তা ঠিক করে দেওয়া হবে বলে জানালেন কলকাতা ফিরহাদ হাকিম।


বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, টানা সাত দিন আবহাওয়া শুকনো থাকলে তবেই কাজ করা সম্ভব হবে।


তবে শহর কলকাতা রাস্তায় খুব বেশি খানাখন্দের সৃষ্টি হয়নি বলেও জানিয়েছেন তিনি।


যা আছে পুজোর আগে সমস্ত রাস্তা সারিয়ে দেওয়া হবে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।


পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন পাটুলি বা বেলেঘাটায় কনটেন্টমেন্ট জোনের সংখ্যা বাড়ছে।


তার কারণ হিসেবে তিনি এদিন ব্যাখ্যা করেছেন, এসব জায়গায় যে সমস্ত বাজার আছে সেখানে মানুষ সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে বাজার করছেন।


আবার হয়তো মাস্ক ব্যবহার করছেন না। ফলতো এই সংক্রমণ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।


এর পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন বড় বড় আবাসনগুলিতে যেখানে লিফট আছে তা ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছে মানুষ, সেখান থেকেও সংক্রমণ ছড়াতে পারে।


সেগুলি অবশ্যই জীবাণুমুক্ত করা উচিত বলে মনে করেন ফিরহাদ হাকিম।


তাঁর মত, তা না হলে এই সংক্রমণ কিন্তু আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে। কারণ এই ভাইরাস কোথায় থাকছে তা জানা সম্ভব হচ্ছে না। বা কার মাধ্যমে ছড়াচ্ছে তাও বোঝা সম্ভব হচ্ছে না ।


তাই নিজে থেকে সবসময় সতর্ক ও সচেতন থাকতে হবে। সেই কারণে মাস্ক ব্যবহার বা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে সবাইকে।