দ্য পিপল ডেস্কঃ লোকচক্ষুর আড়ালে শহরের বুকে রমরমিয়ে চলছে মধুচক্র। বাড়ি ভাড়া নিয়ে দিনে দুপুরে চলছে যৌন ব্যবসা। গোপনসূত্র মারফত খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হানা দেয় বারুইপুর মহিলা থানার পুলিশ। সেখান থেকে গ্রেফতার করা হয় তিনজনকে। ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুরের কামারাবাদে ।

মঙ্গলবার গোপনসূত্র মারফত খবর পাওয়ার পর সোনারপুর কামারাবাদের ঝিল পাড়া এলাকার বাসিন্দা মধুলিকা রায়ের বাড়িতে অভিযান চালায় সোনারপুর থানার পুলিশ। সেখানে থেকে পোল্ট্রি ব্যবসায়ী সান্টু সর্দার ও তার স্ত্রী রীতা সর্দারকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পাশাপাশি এই মধুচক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সুজাতা হালদারকে গ্রেফতার করে। বুধবার তাদেরকে বারুইপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয়।    

পুলিশ সূত্রের খবর, সোনারপুরের অভিজাত এলাকায় রেলের উচ্চ পদস্থ এক কর্তার এই বাড়িটি ভাড়া নিয়েই মধুচক্র চালানো হত। এরপর গত দুই-তিন ধরে মধুলিকা রায়ের বাড়িতে চলত যৌন ব্যবসা।

সেখান থেকে নাবালিকাদের মেয়েদের নিয়ে ব্যবসা করত সর্দার দম্পতি। দিনের পর দিন মধুচক্র চললেও টের পাননি প্রতিবেশীরা। বাইরে থেকে ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ করা হত বলে অনুমান পুলিশের।   

এই ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় বেশ কিছু মদের বোতল, টাকা ও অন্যান্য সামগ্রী। এই মধুচক্রের সঙ্গে আরও কেউ জড়িত আছে কি না, তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here