দ্য পিপল ডেস্কঃ প্রয়াত দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শীলা দিক্ষিত। শনিবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ দিল্লির একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান দিল্লির তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। শোকের ছায়া রাজনৈতিক মহলে।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

বেশ কিছুদিন ধরেই হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। গত বছরেই ফ্রান্সে তাঁর হার্ট অপারেশন হয়। শারীরিক পরিস্থিতি গুরুতর হওয়ায় শনিবার সকালে তাঁকে ভেন্টিলেশনে দেওয়া হয়। হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন কংগ্রেসের এই বর্ষীয়ান নেত্রী।

দিল্লির তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত কংগ্রেসের অন্যতম প্রবীণ নেতৃত্বের মধ্যে একজন। রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের পাশাপাশি সমাজকর্মী হিসেবেও তাঁর উল্লেখযোগ্য পরিচিতি ছিল।

১৯৩৮ সালের ৩১ মার্চ পাঞ্জাবে জন্ম শীলা দীক্ষিতের। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতকোত্তর পাশ করেন। ১৯৮৬-১৯৮৯ সময় পর্যন্ত তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন, প্রথমে সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে এবং পরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রতিমন্ত্রী হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেন। 

১৯৯৮ সাল থেকে ২০১৩ পর্যন্ত একটানা ১৫ বছর দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তিনি। ২০১৪ সালের ১১ মার্চ কেরালার রাজ্যপাল হিসেবে শপথ নেন। দলের স্বার্থে মাত্র পাঁচ মাসের মধ্যে সেই পদ থেকে ইস্তফা দেন।   

শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুতে টুইটে শোক প্রকাশ করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কোজরিওয়াল। তিনি লিখেছেন, দিল্লির জন্য অনের বড় ক্ষতি। তাঁর অবদান কখনও ভোলার নয়। তাঁর পরিবারের জন্য আন্তরিক সমবেদনা জানাই। তাঁর আত্মার শান্তি হোক।  

টুইট করে শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। তিনি জানিয়েছেন, শীলাজির মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। অসামান্য ব্যক্তিত্বের অধিকারী শীলা দিক্ষিতের দিল্লির উন্নয়নে অবদান  অনস্বীকার্য। তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। ওম শান্তি।

জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা টুইটে লিখেছেন, অবাক করা খবর পেলাম। তাঁকে যাঁরা জানেন প্রত্যেকে মিস করবেন। আত্মার শান্তি কামনা করি। 

শোকপ্রকাশ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।