দ্য পিপল ডেস্কঃ ভারতীয় ফুটবলে পিকে যুগের অবসান। চিরতরে বিদায় নিলেন কিংবদন্তী এই ফুটবলার। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩।

বাধ্যর্কজনিত সম্যস্যার পাশাপাশি  স্নায়ু রোগে ভুগছিলেন তিনি। ভর্তি ছিলেন শহরের এক বেসরকারি হাসপাতালে।

ফুটবল জীবনে অনবদ্য সাফল্যের পাশাপাশি কোচ হিসেবেও দুর্দান্ত সফল উত্তরবঙ্গের ময়নাগুড়িতে জন্ম নেওয়া পিকে বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফুটবলার হিসেবে ইস্টার্ন রেলের জার্সি গায়ে খেলেছেন পিকে। ১৯৫৮ সালে কলকাতা লিগ চ্যাম্পিয়ন ইস্টার্ন রেলের সদস্য ছিলেন।

কোনও বড় ক্লাবে না খেললেও জাতীয় দলের হয়ে একাধিক সাফল্য রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। ১৯৫৬ সালের মেলবোর্ন অলিম্পিকে দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন পাশাপাশি ১৯৬০-য় রোম অলিম্পিকে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে গোল করেছিলেন।

১৯৫৮, ১৯৬২ ও ১৯৬৬ সালের এশিয়ান গেমসেও ছিলেন ভারতীয় দলে। এর মধ্যে ১৯৬২ এশিয়ান গেমসে সোনা জেতে ভারত। তবে শুধু ফুটবলার হিসেবে নয়, কোচ হিসেবেও তাঁর সাফল্যের তালিকা দীর্ঘ।

আন্তর্জাতিক অলিম্পিক সংস্থার তরফে একমাত্র এশিয়ান ফুটবলার হিসেবে ইন্টারন্যাশনাল ফেয়ার প্লে পুরস্কার পান। খেলার পাশাপাশি কোচ হিসেবেও তিনি নাম কুড়িয়েছিলেন।

তাঁর ছাত্র সুভাষ ভৌমিক, মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য, সুব্রত ভট্টাচার্য, মিহির বসুরা পরবর্তীতে ময়দানে দাপিয়ে কোচিং করেছেন।

রাজ্য সরকারের তরফেও পেয়েছিলেন জীবনকৃতি সম্মান। এহেন এক কিংবদন্তীর মৃত্যুতে শোক বিহ্বল ময়দান।