দ্য পিপল ডেস্ক: অক্টোবর মানেই উত্‍সবের মাস । সদ্য সমাপ্ত হয়েছে বাঙালির সর্বকালের সেরা উৎসব দুর্গাপূজা । পাশাপাশি দেশজুড়ে দশমীতে পালিত হয়েছে দশেরা ।

এর পরেই অক্টোবরের শেষে রয়েছে দীপাবলি । গোটা অক্টোবর মাস ধরেই দেশের নানা প্রান্তে নানা উত্‍সব পালিত হবে ।

যার মধ্যে কোনোটা সাংস্কৃতিক, কোনোটা বা আঞ্চলিক । এছাড়াও ঐতিহ্যশালী উত্‍সব তো রয়েছেই ।

আসুন দেখে নেওয়া যাক দেশজুড়ে অক্টোবর মাসের বিশেষ উত্‍সব-

নবরাত্রি

নবরাত্রি দিয়েই উত্‍সবের মাসের সূচনা হয়েছে । কার্যত নবরাত্রি শুরু হয়ে গিয়েছে দেবীপক্ষের প্রতিপদ থেকেই ।

মহিষাসুর ও তার সাঙ্গোপাঙ্গদের বিরুদ্ধে লড়াই করে জিতেছিলেন মা দুর্গা এবং তাঁর নানা রূপ – মহাকালী, মহালক্ষ্মী, মহাসরস্বতী প্রমুখ ।

আদিশক্তির জয়ের স্মারক হিসাবে পালিত হয় নবরাত্রি । উত্‍সব উপলক্ষ্যে উত্তর ভারতের গৃহস্থ বাড়িতে এবং মন্দিরে মা দুর্গার স্তবগাথা গাওয়া হয় ।

কোথায় কিভাবে পালিত হয় নবরাত্রি ?

গুজরাতে এর ব্যাপক প্রভাব দেখা যায় । ডান্ডিয়া নেচে নবরাত্রি উত্‍সব পালন করে গুজরাতিরা ।

বাঙালিরা নবরাত্রি পালন করে দুর্গাপূজার মাধ্যমে এবং দক্ষিণ ভারতে পালিত হয় গলু উত্‍সব ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ২৯ সেপ্টেম্বর (প্রতিপদ) থেকে ৭ অক্টোবর (নবমী), ২০১৯।

উত্‍সবের মূল স্থান – উত্তর ভারত, বিশেষ করে গুজরাত।

ওয়াথুকাম্মা

দুর্গার এক রূপ মহাগৌরী । হায়দরাবাদের নারীরা মহাগৌরীর যে পূজা করেন তারই নাম ওয়াথুকাম্মা । গান গেয়ে, প্রচুর ফুল নিবেদন করে পূজা সম্পন্ন হয় ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে ৭ অক্টোবর, ২০১৯ ।

উত্‍সবের মূল স্থান – হায়দরাবাদ, তেলঙ্গানা ।

কবীর যাত্রা

রাজস্থানের লোকগানের উত্‍সব কবীর যাত্রা নিয়ে পরিচিত । দীর্ঘ পথ অতিক্রম করে রাজস্থানের দুর্গম অঞ্চলের লোকেরা উত্‍সবে যোগদান করে থাকেন ।

যাঁরা মীরা বাঈ, সন্ত কবীর, বুলে শাহ প্রমুখের গানের ভক্ত, মূলত তাঁরাই যোগ দেন এই উত্‍সবে ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ২ অক্টোবর থেকে ৬ অক্টোবর, ২০১৯ ।

উত্‍সবের স্থান – জোধপুর, জৈসলমের ও বিকানের ।

দুর্গাপূজা

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উত্‍সব দুর্গাপূজা । কলকাতা এবং পশ্চিমবঙ্গের শ্রেষ্ঠ উত্‍সবে পরিণত হয়েছে এই দুর্গাপূজা ।

জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই যোগ দেন এই উত্‍সবে । মহালয়ার পরই দেবীপক্ষের সূচনা হয়ে যায় ।

লক্ষ্মী-সরস্বতী-গণেশ-কার্তিককে নিয়ে মা সপরিবারে রওনা দেন বাপের বাড়ির উদ্দেশ্যে । পুজোর ৫ দিন মণ্ডপসজ্জা, আলোকসজ্জায় ঝলমল করে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্ত ।

আর শুধু পশ্চিমবঙ্গ কেন, প্রতিবেশী রাজ্য অসম, ত্রিপুরা, ওড়িশা, বিহার এবং ঝাড়খণ্ডেও ও দুর্গাপূজার ধুম যথেষ্ট ।

আর দুর্গাপূজা হয়ে গেলেই সারা ওড়িশা কোজাগরী পূর্ণিমায় মেতে উঠবে গজলক্ষ্মী পূজায় ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ৪ অক্টোবর (ষষ্ঠী) থেকে ৮ অক্টোবর (বিজয়া দশমী)।

উত্‍সবের মূল স্থান – মূলত পশ্চিমবঙ্গ-সহ পূর্ব ভারত হলেও সারা ভারত এবং বাংলাদেশও।

দশেরা

পুরাণ অনুযায়ী, শরতের এই সময়ে লঙ্কার রাজা রাবণ পরাজিত হলেন অযোধ্যার যুবরাজ রামের হাতে । বন্দিনী সীতাকে উদ্ধার করা হয় ।

রামের এই জয় স্মরণীয় করে রাখতে দেবীপক্ষের দশমী তিথিতে পালিত হয় দশেরা । এই উত্‍সব উপলক্ষ্যে অনেক জায়গাতেই রাবণ পোড়ানো হয় । তবে মাইশুরের দশেরা উত্‍সব বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ৮ অক্টোবর (দশমী)।

উত্‍সবের মূল স্থান – সারা ভারত জুড়ে, তবে উত্তর ভারতে বেশি।

রাজস্থান ইন্টারন্যাশনাল ফোক ফেস্টিভ্যাল

নাম শুনেই বুঝতে পারছেন রাজস্থানের লোকশিল্পের সঙ্গে এর সংযোগ রয়েছে । যে সব রাজস্থানী শিল্পী ভারতের বিভিন্ন জায়গায় এবং দেশের বাইরে থাকেন ।

তাঁরা বছরের এই সময় যোধপুরে আন্তর্জাতিক লোক উত্‍সবে হাজির থাকেন । পাঁচ দিন ধরে সারা রাত চলে লোকগান, লোকনৃত্য, আঞ্চলিক নাটক পরিবেশন ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ১০ থেকে ১৪ অক্টোবর, ২০১৯।

উত্‍সবের স্থান – মেহরানগড় ফোর্ট, জোধপুর, রাজস্থান।

রামনগর রামলীলা

ভাদ্র মাসের অনন্ত চতুর্দশী থেকে আশ্বিনের পূর্ণিমা । বছরের এই সময়ে বিশ্বের সব চেয়ে বড়ো রামলীলা অনুষ্ঠিত হয় পৃথিবীর প্রাচীনতম শহরে ।

কাশী ভ্রমণকারী এবং স্থানীয় অধিবাসীদের কাছে দু’ শতক ধরে চলা রামলীলা একটি আকর্ষণীয় অনুষ্ঠান ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ১২-১৩ অক্টোবর, ২০১৯।

উত্‍সবের স্থান – বারাণসীর অপর পারে গঙ্গাতীরের রামনগর।

মারোয়াড় ফেস্টিভ্যাল

রাজস্থানের মারোয়াড় অঞ্চলের ঐতিহাসিক গুরুত্বটাই আলাদা । বিভিন্ন চলচ্চিত্র এবং বইয়ের পাতায় তাদের মহিমার পরিচয় পাওয়া যায় ।

ঐটিহ্যপূর্ণ আঞ্চলিক সংস্কৃতি উদযাপন করা হয় মারোয়াড় ফেস্টিভ্যালে । রাজস্থানের উচ্চাঙ্গ লোকগীতি আর নৃত্যের মাধ্যমে স্মরণ করা হয় মধ্য যুগের নায়ক ও শহিদদের ।

পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য রয়েছে ঘোড়ায় চড়া এবং পোলো খেলায় যোগদানের সুযোগ ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ১২ ও ১৩ অক্টোবর, ২০১৯।

উত্‍সবের স্থান – জোধপুর, রাজস্থান।

দীপাবলি

কার্তিক মাসের অমাবস্যার রাতটা আলোর রোশনাইতে ভরে ওঠে ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত । কারণ এ যে আলোর উত্‍সবের সময় ।

প্রদীপ কিংবা মোমবাতির আলোয় ঢেকে ফেলা হয় বাড়ির প্রতিটি অংশ । কিন্তু বছরের এই দিনটিতে আলোর রোশনাইয়ের কারণ কি?

রাবণকে মেরে সীতা উদ্ধার করে রাম এ দিন অযোধ্যা নগরীতে প্রবেশ করেছিলেন । অযোধ্যাবাসী দীপমালায় অযোধ্যা সাজিয়ে রামকে অভ্যর্থনা করেছিল ।

এ দিন পশ্চিমবঙ্গে পালিত হয় কালীপুজো । আর গ্রামেগঞ্জে পালিত হয় লক্ষ্মীপুজো ।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ২৭ অক্টোবর, ২০১৯। দক্ষিণ ভারতে ২৬ অক্টোবর।

উত্‍সবের স্থান – সারা দেশ জুড়ে।

তাওয়াং উত্‍সব

পর্যটনের প্রসারে এবং পর্যটকদের আকর্ষণ করতে অরুণাচল প্রদেশ পর্যটন দফতর প্রতি বছর তাওয়াং উত্‍সব পালন করে ।

তাওয়াং মনাস্টেরির সন্ন্যাসীরা অবিরাম মন্ত্রোচ্চারণ করেন । উত্‍সবে আদিবাসী নৃত্য ও লোকনৃত্য পরিবেশন করা হয় ।

সঙ্গে থাকে খাদ্য উত্‍সব এবং পর্যটকদের আকর্ষণ করার জন্য নানা অনুষ্ঠান।

উত্‍সবের দিনক্ষণ – ২৯ থেকে ৩১ অক্টোবর, ২০১৯।

উত্‍সবের স্থান – তাওয়াং, অরুণাচল প্রদেশ।

তাহলে আর দেরি কিসের অক্টোবর মাসের বিশেষ উত্‍সব তো আপনার হাতের মুঠোয় । ছুটিতে বেড়িয়ে পড়ুন যোগ দিতে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here