দ্য পিপল ডেস্কঃ এনআরসি নিয়ে লোকসভায় সরব হয়েছে তৃণমূল সাংসদরা । অসম এনআরসিতে বাদ পড়েছে ১৯ লক্ষ মানুষের নাম। অসমের পর এবার বাংলাতেও এনআরসি লাগু করতে চায় বিজেপি। তার আগে এনআরসির বিপক্ষে বিধানসভাতেও তৃণমূলের সঙ্গে একমত হয়েছে সিপিআই(এম) এবং কংগ্রেস। কিন্তু বাংলাতে এনআরসি লাগু করতে মরিয়া বিজেপি সরকার। এবার কলকাতায় এসে সেরকমই ইঙ্গিত দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি।

মোদি সরকারের ১০০ দিন উপলক্ষে মঙ্গলবার কলকাতায় আসেন কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। এক জনসভায় তিনি জানান, এনআরসি নিয়ে যতই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধিতা করুন আন কেন, বাংলাতেও এনআরসি লাগু করবে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যে অনুপ্রবেশকারীদের আটকাতে এনআরসি লাগু করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিন সরাসরি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তিনি বলেন, এক সময় সচিত্র ভোটারকার্ডের দাবীতে সোচ্চার হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এখন কি ভাবে এনআরসির বিরোধিতা করেন তিনি। এটা একপ্রকার দ্বিচারিতা বলে কটাক্ষ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর।

অসমে এনআরসি লাগু করার পর বাদ পড়েছে ১৯ লক্ষের নাম। যা নিয়ে চিন্তা শুরু হয়েছে বিজেপির অন্দরেই। এনআরসিতে নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে কংগ্রেস, বিজেপি শরিক অসম গণ পরিষদ সহ একাধিক রাজনৈতিক দলগুলি।

শুরু থেকে এনআরসির বিরোধিতা করে আসছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যে যাতে না এনআরসি লাগু না হয় তার জন্য সরকার পক্ষের সঙ্গে একজোট হয়েছে কংগ্রেস এবং সিপিআই(এম)। যা ঘিরে তোলপাড় শুরু হয় বিধানসভায়। প্রতিবাদে বিধানসভার বাইরে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপি বিধায়করা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here