An isolated, generic, University diploma with cap and orange tassel.

 

দ্য পিপল ডেস্কঃ উন্নতিশীল ভারতবর্ষে কেরিয়ার গড়ার অন্যতম দিশা ইঞ্জিনিয়ারিং। লাখে লাখে ছাত্রছাত্রীরা প্রত্যহ স্বপ্ন দেখা সফল ইঞ্জিনিয়র হওয়ার। কিন্তু মনমত স্ট্রিম না পাওয়ার কারণে অচিরেই সেই স্বপ্ন জলাঞ্জলি অনেককেই। আজ ইঞ্জিনিয়ারিং দিবসে রইল তাঁদের জন্য নতুন দিশা। গতানুগতিক সাবজেক্ট থেকে একটু বেরিয়ে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কিছু নতুন অধ্যায়ের ওপর চোখ রাখা যাক-

 এগ্রিকালচার ইঞ্জিনিয়ারঃ

দেশের বেশিরভাগ শহুরে তরুণ ইঞ্জিনিয়াররা মেকানিকাল, সিভিল ও ইলেকট্রনিক্সের বাইরে ভাবতে পারে না। তাদের জন্য ধারাবাহিক থেকে বেরিয়ে এগ্রিকালচার নিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন। এটি বিশেষত দেশের গ্রামীন এলাকাগুলির ওপর পরিচার্য করা হয়। এই বিভাগে কৃষিকাজের পরামর্শদাতা হিসেবে, কৃষিকাজ ও পণ্যের, দ্রব্য প্রক্রিয়াকরন ছাড়াও বিভিন্ন ভাগে কাজ করতে পারে।

আমুল, আইটিসি, প্রোয়াগ্রো সিডস ও এসকর্টোস কোম্পানি কাজের সুযোগ রয়েছে।      

 সিরামিক ইঞ্জিনিয়ারিংঃ 

চিনা মাটির ইন্ডাস্ট্রি হল মাল্টি ডলার ইন্ডাস্ট্রি। হাতের কাজকে যদি সঠিক ভাবে ব্যবহৃত করা হলে এই বিভাগ  থেকে ভালো টাকা উপার্জনের স্থান রয়েছে । চীনামাটি ডিজাইনার, চীনমাটি প্রযুক্তিবিদ্যা, উৎপাদন কর্মী হিসেবে, নির্মাণ ব্যবস্থাপক সহ একাধিক পদে চাকরী পাওয়ার সুযোগও রয়েছে ।

 ফ্যাশন টেকনোলজিঃ

 উন্নয়নশীল সরঞ্জাম ও উৎপাদনে লাভের জন্যই মূলত ফ্যাশন টেকনোলজি ইঞ্জিনিয়রদের ব্যবহার করে কোম্পানি। বস্তুর কোয়ালিটি, গার্মেন্টেসের ফিটনেস, মানব সম্পাদনা ব্যবস্থাপক, সিস্টেম অ্যানালাইজ ও পন্যদ্রব্যের  একাধিক বিষয়ে কাজের সুযোগ দেখা যেতে পারে।

 ফুড টেকনোলজিঃ 

 এই ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে অঙ্কের সঙ্গে বেসিক সায়েন্স ব্যাকগ্রাউন্ড থাকা প্রয়োজন। ফুড টেকনলজি, নিউট্রেশন থেরাপি, সায়েন্স ও ল্যাবোটারি টেকনিকস, টক্সিকোলোজি, রিসার্চ সহ অন্যান্য বিভাগে কাজ করতে পারে।  ডাবর ইন্ডিয়া, আইটিসি লিমিটেড, ক্যাডবারি ইন্ডিয়া, পেপসিকো ইন্ডিয়া, ব্রিটানিয়া ইন্ডাস্ট্রিতে ।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here