দ্য পিপল ডেস্ক : অনেক টানাপোড়েনের পর অবশেষে হতে চলেছে ২০২০ র NEET পরীক্ষা।

তবে করোনা আবহ থাকায় সরকারের তরফে জারি করা হয়েছে বেশ কিছু নির্দেশাবলী।

ইউনিয়ন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তরফে পরীক্ষা পরিচালনার জন্যই কিছু সংশোধিত এসওপি জারি করা হয়েছে।

চলতি বছরে যেসব পরীক্ষার্থী সর্বভারতীয় মেডিকেল প্রবেশিকা পরিক্ষায় অংশ নেবে তাঁদের সকলকেই মেনে চলতে হবে এই নির্দেশিকা।

১. কন্টেনমেন্ট জোন ছাড়া বাকি এলাকাগুলিতে পরীক্ষা নেওয়া হবে।

২. কন্টেনমেন্ট জোন থেকে কোনও পরীক্ষার্থীদের প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। কন্টেনমেন্ট জোনে থাকা প্রার্থীদের জন্য অন্য কোনও ব্যবস্থা করা হবে।

৩. পরীক্ষার প্রশ্নপত্র, খাতা, পেন ধরার আগে হাত স্যানিটাইজ করে নিতে হবে। পরীক্ষার পর খাতা দেওয়ার সময়ও হাত স্যানিটাইজ করে তবেই ফেরত দিতে হবে।

৪. এছাড়া পরীক্ষকদেরও উত্তপত্র প্যাকেজিং সহ বেশ কিছু কাজ করার সময় হাত স্যানিটাইজ করতে হবে।
৫. উত্তরপত্র হাতে পাওয়ার ৭২ ঘন্টা পর তা খোলা হবে।

৬. শীট গোনা বা পাতা ওল্টানোর জন্য থুতু ব্যবহার করা যাবে না।

৭. কারোর সঙ্গে নিজের ব্যক্তগত জিনিসপত্র শেয়ার করার অনুমতি মিলবে না।

 

৮. অনলাইন পরীক্ষার ক্ষেত্রেও কম্পিউটার মেশিনগুলিকে স্যানিটাইজ করে নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

৯. যদি কোনও ক্ষেত্রে পরীক্ষার হলে ঢোকার সময় কোনও প্রার্থীর করোনা ভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়, সেক্ষেত্রে তাঁকে অন্য ঘরে পরীক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা রাখতে হবে। যাতে কারও সঙ্গে স্পর্শে না আসেন তিনি।

১০. মাস্ক অবশ্যই পড়তে হবে।

১১. লক্ষণগুলি ক্রমশ বাড়তে থাকলে পাশের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। পাসাপাশি রাজ্যের হেল্পলাইনেও যোগাযোগ করতে হবে।

১২. কোনওভাবে কোনও ব্যক্তির শরীরে কোভিড পজিটিভ আসলে সেক্ষেত্রে পরীক্ষাকেন্দ্র স্যানিটাইজ করতে হবে।

১৩. এছাড়াও সকলকে অন্তত ৬ ফুট সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বয়স্ক বা গর্ভবতী কোনও পরীক্ষকে ডিউটি দেওয়া যাবে না।

১৪. ভিড় এড়িয়ে চলতে হবে। সকল পরীক্ষার্থীদের ফরমাল স্ক্রিনিং টেস্ট করাতে হবে।