দ্য পিপল ডেস্কঃ ছোট্ট একটা তিল। তা থেকেই বোঝা যায় মানুষের চরিত্র। অন্তত এমনই বিশ্বাস করেন তিল তত্ত্ব বিচার করেন যাঁরা, তাঁরা। এঁদের মতে, নাভির ওপরে তিল থাকলে পেটুক হয়। আর নাভির নীচে তিল দেখলেই বুঝবেন, সামনে দাঁড়ানো মানুষটি সেক্সি। শুধু তাই নয়, তিনি রোমান্টিকও।

মনের মানুষটি সেক্সি হোন, এটা চান সবাই। তাই যাঁরা সেক্সি, তাঁরা তো শরীর প্রদর্শন করেনই, যাঁদের যৌন চাহিদা কম, তাঁরাও শরীরি বিভঙ্গে মাত করতে চান পুরুষকে। রতিক্রিয়ার সময় দু’জনেই সেক্সি হলে ঝড় ওঠে বিছানায়। কামনার আগুনে পুড়ে মরতে ইচ্ছে করে নারী-পুরুষ উভয়েরই।

তাই সেক্সি নারী কিংবা পুরুষের এত কদর গোটা বিশ্বেই। কেবল বাঙালি নন, গোটা পৃথিবীতেই সেক্সি নারী কিংবা পুরুষের পেছনেই ছোটেন সবাই। এখন প্রশ্ন হল, বাইরে থেকে কীভাবে বোঝা যাবে কে সেক্সি, আর কে নন? যদি তর্কের খাতিরে ধরেই নিই যে, যাঁরা শরীর প্রদর্শন করেন, রূপবহ্নির স্ফুলিঙ্গ দিয়ে অন্যের বুকে জ্বালাতে চান কামনা আগুন, তাঁরা সেক্সি হবেন এমন কোনও কথা আছে কী? যদি তা থাকত, তবে অত্যাধুনিকারা যে সেক্সি, তা বলে দেওয়া যেত কেবল রূপের ঝিলিক দেখলেই। তা যে নয়, প্রতিদিন দাম্পত্য সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার বহর দখলেই মালুম। মনে রাখতে হবে, যৌনজীবন সুখের হলে সংসার ভাঙতে চান না কেউই। নিশিখেলায় ঝড় ওঠে না যে বিছানায়, সেই বাসী বিছানায় শুয়ে লাভ কী?

তাহলে বাইরে থেকে কেউ সেক্সি কিনা, তা বোঝা যাবে কীভাবে? যাঁরা তিল তত্ত্বে বিশ্বাসী, তাঁরা এজন্য শরণাপন্ন হতে পারেন এই তত্ত্বের। তিলতত্ত্ববাদীদের মতে, কোনও মহিলার নাভির নীচে তিল থাকলে তিনি সেক্সি হবেনই। নাভি থেকে বেশ খানিকটা নীচে যাঁদের তিল রয়েছে, তাঁরা রোমান্টিকও হন। তিলটি বাঁ দিকে থাকলে মহিলারা নরম মনের হন। পুরুষের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। এ প্রসঙ্গে উল্লেখ করা যেতে পারে একটি লোকশ্রুতির। এই বিশ্বাস অনুসারে, মহিলাদের নাভির নীচে বাঁ দিকে তিল থাকলে তিনি কন্যা সন্তানের জন্ম দেবেন। আর তিল ডান দিকে থাকলে, তিনি হবে ছেলের মা।

তবে ছেলে না মেয়ে কোন সন্তানের জন্ম দেবেন, তা জানা যায় না তিলতত্ত্ববাদীর কাছ থেকে। শুধু জানা যায়, যাঁদের যৌনাঙ্গে তিল থাকে তাঁরা কামুক হন। খাওয়া-দাওয়া কাজ-কর্ম সব লাটে তুলে তাঁরা মেতে থাকতে চান সৃষ্টি সুখের উল্লাসে।

বিছানায় ঝড় উঠুক, তা তো সবাই চান। তবে তার জেরে যেন জনবিস্ফোরণ না হয়, সেটা লক্ষ্য রাখার দায়িত্বও কিন্তু যাঁরা সৃষ্টি সুখের উল্লাসে মাততে চাইছেন, তাঁদেরও। 

24 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here