কাঠুয়াকাণ্ডে তিন ধর্ষককে যাবজ্জীবন

0
24

দ্য পিপল ডেস্কঃ কাঠুয়া গণধর্ষণকাণ্ড আরও একবার দেশের নারী সুরক্ষা আর নারী নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল। অবশেষে সেই ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত করা হল কাঠুয়াকাণ্ডে অভিযুক্ত ছয় জনকে। ৩ জনকে যাবজ্জীবন ও বাকি ৩ জনকে ৫ বছরের কারাদণ্ডের আদেস দিয়েছে পাঠানকোট আদালত।

আজ দোষীদের সাজা ঘোষণা করল পাঠানকোটের বিশেষ আদালত। দীপক খাজুরিয়া, সনজি রাম ও পরবেশ কুমারের যাবজ্জীবনের পাশাপাশি বাকি ৩ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেস দেওয়া হয়েছে। এর আগে সবাইকে বর্তমানে পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর কারাগারে রাখা হয়।

মামলায় অভিযুক্ত মোট ৬ জন। এরা হল, প্রাক্তন রেভিনিউ আধিকারিক সনজি রাম, বিশেষ পুলিশ আধিকারিক দীপক খাজুরিয়া এবং সুরিন্দর কুমার, পরবেশ কুমার, সনজি রামের ছেলে বিশাল জনগোত্র এবং একজন নাবালক। তার বিচার হচ্ছে আলাদাভাবে। সনজি রামের ছেলে বিশাল জনগোত্রকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত।

এছাড়া দু’জন তদন্তকারী অফিসার হেড কনস্টেবল তিলক রাজ এবং সাব ইন্সপেক্টর আনন্দ দত্ত এই মামলার গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট করার দায়ে অভিযুক্ত হয়েছিল। জানা গেছে, হেড কনস্টেবল তিলক রাজ ও সাব ইন্সপেক্টর আনন্দ দত্ত সনজি রাম থেকে ৪ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ ধ্বংস করে।

২০১৮ জানুয়ারি মাসে জম্মু-কাশ্মীরে ৮ বছরের ছোট্ট মেয়ে ঘোড়া চড়াতে গিয়ে দূরে চলে যায়, আর ফেরেনি। ওই নাবালিকাকে অপহরণ করে সাতদিন ধরে আটকে রেখে ধর্ষণ ও তার পর খুন করে দেহ ফেলে দেওয়া হয় জঙ্গলে।

জঙ্গল থেকে নিখোঁজ নাবালিকার পচাগলা দেহ উদ্ধারের পরই ঘটনার বিভত্সতায় তোলপাড় হয় গোটা দেশ। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে পথে নামেন সাধারণ মানুষ থেকে সেলিব্রেটিরাও।

ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ১৭ মাস মামলা চলার পর ৩ জুন মামলার শুনানি শেষ হয়। আজ সাজা ঘোষণার দিন।

পাঠানকোট জুড়ে রয়েছে উত্তেজনার আবহ, অশান্তি এড়াতে ১০০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। রাখা হয়েছে বম্ব স্কোয়াডও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here