দ্য পিপল ডেস্কঃ মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের ঘটনা ইতিমধ্যেই সারা দেশজুড়ে আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। বিজয়ার দিনে পরিবারের তিন সদস্যকে নৃশংসভাবে কেন খুন করা হল? তার তদন্ত করতে শুরু করেছে পুলিশ। যত শীঘ্র সম্ভব দোষীদের শাস্তির দেওয়া হোক, মুখ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে টুইটারে সরব হয়েছেন অপর্না সেন।

এরই মধ্যে জিয়াগঞ্জের ঘটনায় মৃতের পরিবারকে সমস্ত সাহায্যের জন্য এগিয়ে এলেন জঙ্গিপুরের তৃণমূল বিধায়ক জাকির হোসেন। মৃত স্কুল শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পালের মা মায়া পালের সমস্ত দেখভালের সমস্ত দায়িত্ব নেবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশপাশি ১৭ নভেম্বর মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তিনি আরও বলেন একজন সন্তান হিসেবে মায়া দেবীর পাশে সবসময় রয়েছি।

এদিন সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী জাকির হোসেন জানিয়েছেন, নিজের চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে যাবেন তিনি। তারপর ফিরে এসেই পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন ।

পুজোর আগেই ফারাক্কার সমস্ত লকগেট খুলে দেওয়ায় জলবন্দি হয়ে পড়ে মুর্শিদাবাদের একাধিক এলাকা। জলবন্দি মানুষের পাশে সর্বদাই ছুটে গিয়েছেন তিনি। শুধুমাত্র তাই-ই নয়, এলাকাবাসীর বিপদের সময়ে তাঁদের অন্ন বস্ত্র দিয়ে তাঁদের সাহায্য করেছেন মন্ত্রী জাকির হোসেন।বিপদের দিনে নিজেদের কাছের মানুষকে সব সময় পাশে পেয়ে আশ্বস্ত হয়েছে এলাকার সাধারণ মানুষ।

এদিন সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, রাজনীতির রঙ লাগিয়ে মুর্শিদাবাদে গণ্ডগোল তৈরি করতে চাইছে বিজেপি। এ ধরনের রাজনীতি মুর্শিদাবাদের মানুষ পছন্দ করেন না। এ প্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশে যখন কাউকে পিটিয়ে খুন করা হয়ে তখন কেউ প্রতিবাদ করেন না। অথচ এরকম একটি নৃশংস খুনের ঘটনায় রাজনৈতিক রঙ লাগিয়ে জেলায় জায়গা দখলের চেষ্টা করছে বিজেপি। একইসঙ্গে এধরণের রাজনীতি থেকে মুর্শিদাবাদের মানুষকে সতর্ক থাকার কথা জানিয়েছেন তিনি।

শুধুমাত্র বিধায়ক বা মন্ত্রী নয়, এর আগে সব সময়েই এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন জাকির হোসেন। সময়ে অসময়ে তাঁদের চাল, জামা-কাপড় দিয়ে সাহায্য করতে দেখা গিয়েছে মন্ত্রীকে। এলাকার মানুষের দুর্দিনে ত্রাতার ভুমিকা পালন করায় তিনি একদিকে যেমন সাধারণ মানুষের ভীষণ প্রিয়। একইভাবে দলনেত্রীর নির্ভরযোগ্য একজন সৈনিক।

মন্ত্রী জাকিরের ক্যারিশ্মাতেই জঙ্গিপুরের আসনে কংগ্রেসের দুর্গ ভেঙে তৃণমূলের প্রভাব বিস্তার করতে পেরেছে বলে দাবী করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তাঁর জনদরদী স্বচ্ছ ইমেজ আগামী দিনে জঙ্গিপুর সহ মুর্শিদাবাদে তৃণমূলের আধিপত্য কায়েম রাখবে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here