দ্য পিপল ডেস্ক: একহাতে তাঁকে সব কাজ সামলাতে হয়। যেন দেবীদুর্গা। সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি গানেও সমানভাবে দক্ষ। আবার তিনি কয়েক মাস আগেই লোকসভা নির্বাচনে জিতে যাদবপুরের নতুন সাংসদ। বুঝতেই পারছেন অভিনেত্রী তথা সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর কথা বলছি।   

সদ্যই মুক্তি পেয়েছে তাঁর নতুন ইউটিউব চ্যানেল। কথা চলছে সিনেমারও। এলাকার উন্নয়নের কাজ নিয়েও ব্যস্ত । এই তুমুল ব্যস্ততার মধ্যে পুজোর জন্য কেনাকাটার কোনও সময়ই মিমি পাননি।

মিমি জানালেন, শেষ কয়েকমাস ধরে তিনি খুবই ব্যস্ত ছিলেন। মা-বাবা পুজোয় নতুন জামা কিনতে তাঁকে টাকা দিয়েছেন। কিন্ত তাঁর হাতে সময়ের যে বড় অভাব। তাই মা-বাবার দেওয়া টাকাতে কোনও নতুন পোশাক  কিনে উঠতে পারেননি।

এমনকী, তাঁর সদ্যজাত বোনঝির জন্যও কিছু কেনার সময় পাননি। তবে পুজো উপলক্ষ্যে তিনি প্রচুর উপহারও পেয়েছেন। বন্ধু, আত্মীয়, তাঁর টিম এবং লোকসভা কেন্দ্র থেকে অনেকেই উপহারের ডালি সাজিয়ে দিয়েছেন।  

শাড়ি, সালোয়ার, গয়না- এত উপহার পেয়ে খুবই খুশি তিনি। এখানেই শেষ নয়, প্রতি বছরের মতো এই বছরও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সুন্দর একটি শাড়ি উপহার দিয়েছেন মিমিকে। সেই শাড়ি পড়ে একদিন পুজো মণ্ডপে তিনি যাবেন।

এছাড়াও এবার পুজোয় মিমির ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হল একরঙা সালোয়ারের সঙ্গে ভারী কাজের দোপাট্টা। অনেক পুজোর উদ্বোধনেই এই পোশাকে দেখা গিয়েছে মিমিকে।

এছাড়াও তাঁর এক বিশেষ বন্ধু গোলাপি-সোনালি কম্বিনেশনের একটি শাড়ি তাঁকে বানিয়ে উপহার দিয়েছেন।

নিজের জন্য একটিই হলুদ রঙের জাম্পস্যুট কিনেছেন তিনি। সঙ্গে ম্যাচিং গয়নাতো আছেই।

নবমীর দিন দুপুরে নিজের বাড়িতে সব বন্ধুদের নিমন্ত্রণ করেছেন তিনি। সেই দিন অবশ্য একটি নতুন শাড়ি পরে তিনি সাজবেন।

নুসরতের বিয়ের সময় মিমি প্রচুর শপিং করেছিলেন। সব পোশাক তখন পরার সুযোগও পাননি। তাই পুজোতে সেই সব পোশাকে তিনি সাজবেন বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here