লড়াইয়ের ডাক মমতার

দ্য পিপল ডেস্কঃ কোনো মতেই ছাড় দেওয়া হবে না প্রতিপক্ষকে, ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে বিরোধী তথা বিজেপিকে টেক্কা দিতে তৃণমূল ভবন থেকে দলীয় নেতাদের উদ্দেশ্যে লড়াইয়ের ডাক মমতার ।

এনআরসি নিয়ে আরও সরব হওয়ার পরামর্শ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যে এনআরসি চালু হলে কী ক্ষতি হতে পারে তা মানুষকে বোঝানোর নির্দেশ তৃণমূল সুপ্রিমোর।

বলেন, যাঁরা ওপার বাংলা থেকে এসেছেন তাঁদের কতবার প্রমাণ করতে হবে? যাঁরা এখানে আছেন তাঁরা এখানকার নাগরিক।  

প্রয়োজনে বুথভিত্তিক সাধারণ মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে বোঝানোর জন্য নেতাদের বার্তা দেন মমতা। ১১ নভেম্বর সারা রাজ্য জুড়ে প্রতিবাদ মিছিল বের করারও নির্দেশ দেন তিনি।  

অন্যদিকে ইতিমধ্যেই দিদিকে বলো কর্মসূচি বেশ হিট। এই কর্মসূচি নিয়েও মানুষের আরও কাছে যাওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে বৃহস্পতিবারের বৈঠক থেকে।

আরও পড়ুনঃ মন্দিরে মুখে মাস্ক পড়লেন মাকালী, সাঁইবাবা

জনসংযোগের এই হাতিয়ারকে আরও সক্রিয় করতে প্রত্যন্ত এলাকার ও তফশিলি জাতি, উপজাতি এলাকার মানুষের চাহিদা নথিভুক্ত করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।     

পাশাপাশি, এদিন মুখ্যমন্ত্রী ফের একবার সরব হন কেন্দ্রের নীতির বিরুদ্ধে। প্রশ্ন তোলেন, হিন্দি ও ইংরেজির সঙ্গে কেন শুধুমাত্র গুজরাটি ভাষা প্রাধান্য পাবে?

কেন বাংলার ছেলেমেয়েরা মাতৃভাষায় জয়েন্ট এন্ট্রাস পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবে না? এ তো কেন্দ্রীয় সরকারের বৈষম্য নীতি। এই নীতি বাংলা মানবে না।

মমতা বলেন, বাংলা সহ সব রাজ্যের আঞ্চলিক ভাষায় জয়েন্ট পরীক্ষা নিতে হবে। এমন কি মেডিক্যাল পরীক্ষা নিতে হবে। 

২০১৯ সাল শেষের দিকে। নতুন বছর আসতেই শুরু ভোটের দামামা। তার আগে যেন আরও একবার গা ঘামাতে লড়াইয়ের ডাক মমতার ।

উল্লেখ্য, রাজ্যে ২০২০ সালে পুরভোট, ২০২১ সালে বিধানসভা ভোট। তৃণমূল ও বিজেপি দুই পক্ষই কোমর বেঁধে মাঠে নামার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার তৃণমূল ভবনে তারই একপ্রস্থ ট্রায়াল দিলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।   

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here