।। আঁখি রায় ।। 

তৃণমূলকে বিপাকে ফেলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং। অন্তত সংবাদ মাধ্যমে এমনই দাবি করেছেন প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা মদন মিত্র। একদা মমতা ঘনিষ্ঠ মদনের এহেন মন্তব্যে অস্বস্তিতে পড়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।

একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেল কর্তৃপক্ষ স্টিং অপারেশন চালান মদনের ডেরায়। সম্প্রতি তাঁরা প্রকাশ করেছেন সেই অপারেশনের ভিডিও এবং অডিও ক্লিপিংতাতেই দেখা যায়, দলনেত্রীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন মদন(পিপল টিভি অবশ্য ভিডিও-অডিও-র ক্লিপিংসের সত্যতা যাচাই করেনি)।

মদন বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে হারার ভয় ঢুকে গিয়েছে।এখন আর দলের তেমন ক্ষমতা নেই। স্থানীয় স্তরের মিটিং করতে গেলেও পুলিশ-প্রশাসনের সহযোগিতা লাগে!

পঞ্চায়েত নির্বাচনে মারামারিও মানুষ ভালোভাবে নেয়নি বলে মদন মনে করেন। তিনি বলেন, মমতা জানতেন তিনি হেরে যাবেন। সেই কারণেই গায়ের জোরে নির্বাচন করতে গিয়েছেন। ক্ষমতা দেখিয়ে নির্বাচন করতে গিয়ে বহু মানুষের প্রাণ গিয়েছে। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে দর কষাকষি করে ভোটের দিন পরিবর্তন না করলে হয়তো এত মানুষের প্রাণ যেত না।

প্রাক্তন পরিবহণ মন্ত্রী বলেন, যেখানে তৃণমূল নেত্রী মনে করেছেন দলের লোক দিয়ে জেতা সম্ভব নয়, সেখানেই পুলিশকে কাজে লাগিয়েছেন। এটাও মানুষ ভালোভাবে নেননি। তিনি জানান, মানুষ এত বোকা নন। স্থায়ী সরকারের জন্য মানুষ জাতীয় দলের ওপর ভরসা রেখেছেন বলেও মন্তব্য করেন মদন।

জয় শ্রীরাম ধ্বনির বিরোধিতা করেও মমতা ভুল করেছেন বলে মদন মনে করেন। তিনি বলেন, মমতা নিজের ইমেজ নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় পেয়েছেন। ভেবেছেন, এই স্লোগানে তাঁর প্রতিপত্তি চুরমার হয়ে যাবে। এই ভাবনাকে গুরুত্ব দেওয়ার পিছনে রয়েছে মমতা নিজে ও তাঁর পরিবার।বিশেষ করে ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মদন বলেন, রামকে নিয়ে ভাবনার কিছু ছিল না। কবি ইকবালও রামের কথা বলেছেন। আমরাও তো রামের আয়োজন করা দুর্গাপুজোয় শামিল হই।

তৃণমূলের ভ্রান্ত নীতির জন্যই যে রাজ্যে বিজেপির রমরমা, তাও মনে করিয়ে দিয়েছেন মদন। তিনি বলেন, রাজ্যে বিজেপির কোনও ক্ষমতা ছিল না। কাজ করার মতো কর্মীও ছিল না। তৃণমূলের ভ্রান্ত নীতির জন্যই বিজেপির রমরমা। লোকসভা নির্বাচনের স্লোগান জুতসই না হওয়ায় তা আমজনতাকে আকৃষ্ট করেনি বলেও মনে করেন মদন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here