যৌনজীবনে সুখী হতে চান? মেনে চলুন এই নির্দেশ

0
139

দ্য পিপল ডেস্কঃ সবাই তো সুখী হতে চায়। যৌনজীবনের ক্ষেত্রেও এই কথাটি প্রযোজ্য। তবে সবাই সুখী হতে পারেন না।

তার সব চেয়ে বড় কারণ, এদেশে যৌনজীবন নিয়ে পড়াশোনা করেন না অধিকাংশ মানুষই।

ফুলশয্যার রাতে ট্রায়াল অ্যান্ড এরর মেথডের ওপরই নির্ভর করেন সিংহভাগ নারী-পুরুষ।

সঙ্গী কিংবা সঙ্গিনীর শরীর চিনতে কেটে যায় বেশ কয়েকটা দিন। নষ্ট হয় অমূল্য সময়।

তার পরেও যদি বা জীবনে যোগ হল জীবন, তবে তাতে আর আনন্দ মেলে কই!

যৌনজীবনে সুখী হওয়ার নিয়ম:

বিয়ের পর প্রথম প্রথম চব্বিশ ঘণ্টায় তিন-চারবার শরীরি খেলায় মাতেন নব দম্পতি। তার পর কিছুদিন পার হলেই সব ফক্কা।

গায়ের গন্ধটা যখন আর টানে না, শরীর যখন প্রায় মুখস্থ হয়ে যায়, স্তন জোড়া কিংবা বক্ষবিভাজিকা যখন আর মাতাল করে না তখন বিছানা হয়ে যায় বাসী।

সেই বাসী সম্পর্কই আজীবন বয়ে বেড়ান এ দেশের সিংহভাগ নারী-পুরুষ।

এই বাসী সম্পর্কই কীভাবে ফের তাজা হয় তা নিয়ে গবেষণা হয়েছে প্রাচীন কালেও।

কোনও এক আয়ুর্বেদাচার্য বলেছিলেন, দাম্পত্য সম্পর্ক দীর্ঘদিন টাটকা-তাজা রাখতে শরীরি সম্পর্কের মাঝে বিরতি দিন।

তিনি বলেছিলেন, যৌনসঙ্গম করা উচিত মাসে এক, বছরে বারো, তার চেয়ে যত কম পার।

তবে আয়ুর্বেদাচার্যের কথা আর কে কবেই বা শুনেছেন! এতদিন পরে অবশ্য এক গবেষণায়ও জানা গিয়েছে, নিয়মিত যৌনসঙ্গম ভালো নয়।

এক শরীরের প্রতি অন্যের টান বজায় রাখতে রতিক্রীড়া করুন দু দিন অন্তর।

বিরতি দিয়ে শরীরি খেলায় মাতলে মিলবে বাড়তি রতিসুখ। মিলন কামনায় কাতর হয়ে উঠবেন নারী-পুরুষ উভয়েই।

ফ্লোরিডা স্টেট ইউনিভার্সিটির শরীরবিদ্যা বিভাগের গবেষক অ্যান্ড্রয়া মল্টজার ২১৪ জন নবদম্পতির ওপর সমীক্ষা চালান।

এঁদের দু সপ্তাহের যৌনজীবনের সমস্ত তথ্য লিপিবদ্ধ করা হয়।

দেখা যায়, যাঁরা বিরতি দিয়ে দিয়ে নিশিখেলায় মেতেছেন, যৌনজীবনে তাঁরাই আনন্দ পেয়েছেন সব চেয়ে বেশি।

দাম্পত্য সম্পর্কও হয়েছে দৃঢ়। মাস ছয়েক পরে আবারও সমীক্ষা চালানো হয়।

আরও পড়ুন

ফল মেলে একই।গবেষকরা জেনেছেন, বিরতি অন্তত দু দিনের হওয়া উচিত।

তাতে ফলবে সোনা। সঙ্গী কিংবা সঙ্গিনী উঠে যাবেন রতিসুখের সপ্তম স্বর্গে।

শরীরবিদদের একাংশের মতে, বিছানায় যাওয়ার আগে নিজেকে সাজিয়ে তুলুন।গায়ে মেখে নিন সুগন্ধী।

গায়ের গন্ধের সঙ্গে সুগন্ধীর গন্ধ মিশলে আপনার পার্টনারের খিদে বেড়ে যাবে বেশ কয়েক গুণ।তার পরেই মাতুন রতিলীলায়।

কালবৈশাখী ঝড় উঠুক ঘরে। কামনার আগুন জ্বালিয়ে দিন সঙ্গী কিংবা সঙ্গিনীর বুকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here