দ্য পিপল ডেস্কঃ প্রয়াত বাংলাদেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি ও সেনাপ্রধান হুসেইন মহম্মদ এরশাদ । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯১ বছর ।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

তাঁর প্রতিষ্ঠিত জাতীয় দল বলছে, ১৯৩০ সালে রংপুর জেলায় ১ ফেব্রুয়ারি জন্ম এই রাজনীতিবিদের । অন্যদিকে প্রাক্তন এই রাষ্ট্রপতি তাঁর আত্মজীবনীতে লিখেছেন, তিনি কুড়িগ্রামের মামার বাড়িতে জন্ম নেন । তবে, দু’দিক থেকেই অবিভক্ত বঙ্গদেশের কোচবিহারের দিনহাটায় তাঁর পৈতৃক ভিটা রয়েছে বলে একমত । পরে তাঁরা চলে গিয়েছিলেন বাংলাদেশে ।

দিনহাটাতেই কাটে প্রয়াত এই রাজনীতিবিদের শৈশব । তাঁর প্রিয় বন্ধু ছিলেন বাম জমানার কৃষিমন্ত্রী কমলকৃষ্ণ গুহ । কমলকৃষ্ণ গুহের পুত্র উদয়ন গুহ এরশাদকে ‘কাকা’ বলে সম্বোধন করতেন । প্রয়াত সেই রাজনীতিবিদের স্মৃতিচারণা করলেন দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ ।

।। উদয়ন গুহের স্মৃতিচারণা ।।

উদয়ন গুহ, তৃনমুল বিধায়ক, দিনহাটা

একইসঙ্গে শৌখিন, প্রচণ্ড ডিসিপ্লিনড কিন্তু, অদ্ভূতভাবে মাটির প্রতি টান ছিল এরশাদ কাকার । সেই টানেই বারবার ছুটে আসতেন তিনি দিনহাটায় । এমনকি বাবার মৃত্যুর পরও অনেকবার এসেছেন । আমাদের দেখা হয়েছে অনেকবার । নানা বিষয়ে আলোচনা হয়েছে । আশীর্বাদও করেছেন তিনি আমাকে । বলতেন, ‘মানুষের জন্য কাজ কর, তাদের সেবা কর’ ।

খুব শৈশবের কথা আমার মনে নেই । কারন, বাবার কাছে শুনেছি, ক্লাস এইট-নাইনে পড়ার সময়েই এরশাদ কাকারা বাংলাদেশে চলে যান । কিন্তু, দিনহাটার মানুষকে কোনওদিন ভুলতে পারেন নি তিনি । প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরই এসেছিলেন । বিমানবন্দরে বাবা আর আমি তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম । পুরনো বন্ধুদের টানে, পুরনো মাটির টানে তিনি অনেকবার দিনহাটায় এসেছেন ।

বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করেছেন । আমরা পরিবারের সকলে মিলে সময় কাটিয়েছি । খাওয়া-দাওয়া থেকে পোশাক-আশাক সবেতেই ছিলেন শৌখিন । সাহেবি আদব-কায়দা ছিল তাঁর চাল-চলনে ।

ফোনে কথা হয়েছে বহুবার । এই তো কয়েকদিন আগেই কথা হল । খুব ভুগছিলেন কাকা । একজন কেতাদুরস্ত মানুষ ছিলেন ।

সময়ের নিয়মে সকলকেই চলে যেতে হয় । সেই নিয়মে চলে যেতে হল তাঁকেও । বাবার বন্ধু বলে শুধু নয়, এরশাদ ‘কাকা’র কাছে অনেক কিছু শিখেছি । বহুবার পরামর্শও নিয়েছি নানা বিষয়ে । বলতে পারি, বাবার মৃত্যুর পর কাকা পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন । তাঁর চলে যাওয়ার পর এখন অভিভাবকের অভাব বোধ করছি । এরশাদ কাকার মৃত্যুর সঙ্গেই একটা যুগের অবসান হল ।