দ্য পিপল ডেস্কঃ বিভিন্ন পূজা মন্ডপ পরিদর্শন করলেন লালবাজারের জয়েন সিপি হেডকোয়ার্টার্স শুভঙ্কর সিনহা সরকার।

তিনি মঙ্গলবার সকাল থেকে ২০টি মন্ডপ ঘুরে ঘুরে দেখেন। তাঁর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন লালবাজারের অন্যান্য আধিকারিকরা।

প্রথমেই তিনি সোজা চলে যান কুমারটুলি সার্বজনীন দুর্গোৎসব পূজামণ্ডপে। সেখানে গিয়ে পুজো মণ্ডপ ভালো করে খতিয়ে দেখেন।

তিনি এদিন জানান, কুমারটুলি সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি সরকারি সমস্ত গাইডলাইন মেনে পুজো করছে।

দর্শনার্থীদের যেনো কোনো রকম অসুবিধা না হয় সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখা হচ্ছে বলে এদিন তিনি জানিয়েছেন।

সেখান থেকে তিনি সোজা চলে যান মোহাম্মদ আলী পার্ক। সেখানে গিয়েও বেশ খানিকক্ষণ পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন।

তারপর সেখান থেকে সোজা চলে যান কলেজ স্কোয়ার। সেখানে গিয়েও বেশ খানিকক্ষণ পুজো মণ্ডপ খতিয়ে দেখেন তিনি এবং তার সঙ্গে উপস্থিত আধিকারিকরা।

পুজোমণ্ডপে তিনি প্রবেশ এবং বাহির পথ ভালো করে পরিদর্শন করেন। তারপর নিজেদের মধ্যে আলাপ আলোচনা করেন যে এই মন্ডপের প্রত্যেকটি পথ অনেক বড় করতে হবে, যাতে দর্শনার্থীদের প্রবেশ করতে এবং প্রস্থান করতে কোন রকম অসুবিধা না হয় ।

এই দুটি পূজামণ্ডপ তাদের এই সমস্ত পথ গুলি অনেক উন্মুক্ত রেখেছে। বেশ খানিকক্ষণ পরিদর্শন করেন। তার কারণ মোহাম্মদ আলী পার্ক এবং কলেজ স্কোয়ার এই দুটি পুজো মধ্য কলকাতার সব থেকে বড় পুজো ।

দর্শনার্থীদের ভিড় সবথেকে বেশি এখানে হয়। তাই এই করোনা আবহে যদি দর্শনার্থীদের ভিড় বেশি হয় সেক্ষেত্রে এই পুজো মণ্ডপ গুলি প্রবেশ এবং বাহির পথ উন্মুক্ত থাকা প্রয়োজন।

সেই জন্য বারবার করে এই পুজো মণ্ডপ গুলি তারা খতিয়ে দেখেন। এমনকি খতিয়ে দেখার পরও উপস্থিত আধিকারিকদের সঙ্গেও বেশ খানিকটা আলাপ আলোচনা করেন।

তারপর সাংবাদিকদের জানানো হয় পুজো কমিটি তরফ থেকে সমস্ত গাইডলাইন মানা হলেও দর্শনার্থীদের সমস্ত সরকারি নিয়ম মানতে হবে ।

তারা যেন মাস্ক পড়ে পুজোমণ্ডপে আসেন এবং নিজেদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেন।

কোনভাবে একসঙ্গে ভিড় করা চলবে না, ভিড় হলে পুজো মণ্ডপ থেকে যেন সঙ্গে সঙ্গে সেই স্থান খালি করে দেওয়া হয়।