দ্য পিপল ডেস্কঃ জিয়াগঞ্জে সপরিবারে শিক্ষক খুনের ঘটনায় আটক ২। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে খুনের তদন্তের কিনারা করতে চাইছে পুলিশ। পুলিশের সঙ্গে তদন্তে সহযোগিতা করছে সিআইডি।

তবে ধৃত দুই ব্যক্তিকে এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার করেনি পুলিশ। ধৃতদের মধ্যে একজন মৃত শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পালের বন্ধু। তার সঙ্গে মাঝেমধ্যেই টাকা লেনদেন চলত বন্ধুপ্রকাশ পালের।

কী ধরনের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বন্ধুপ্রকাশ, কার কার সঙ্গে আর্থিক লেনদেন চলত ইত্যাদি ব্যবসা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত জানতেই ওই ব্যক্তি জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ ও সিআইডি আধিকারিকরাও।

অন্যদিকে, আটক অন্য ব্যক্তি বন্ধুপ্রকাশ পালের পরিবারের এক সদস্য। তদন্তে জানা গেছে, বেশ কয়েক বছর ধরে চলা জমি সংক্রান্ত মামলায় জয় পেয়েছিলেন বন্ধুপ্রকাশ। সেই সম্পর্কে জানতেই ওই আত্মীয়কে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিশ ও সিআইডি।

এছাড়াও, জানা গেছে, পরিবারের সঙ্গে দূরত্ব ছিল বন্ধুপ্রকাশের। সেজন্য স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে নতুন বাড়িতে থাকতে শুরু করেছিলেন তিনি। কী সেই সমস্যা জানতে চান তদন্তকারীররা।

বন্ধুপ্রকাশের বাড়িতে ভাড়াটেদের ও প্রতিবেশী যে ব্যক্তি খুনের দিন একব্যক্তিকে ছুটে যেতে দেখেছিলেন বলে জানিয়েছিলেন তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করছে তদন্তকারীরা।

খুনের পর ঘর থেকে মিলেছিল একটি নোট। সেই নোটটি কি বন্ধুপ্রকাশের স্ত্রী বিউটি পালের লেখা বলে মনে করা হচ্ছিল। সত্যি তা বিউটি পালের হাতের লেখা কি না তা যেমন একদিকে খোঁজ পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

পাশাপাশি জানার চেষ্টা করা হচ্ছে খুনিদের মধ্যে কেউ পুরো ঘটনার মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য বিউটি পালের নামে চিঠিটি লিখে রেখে গেছে কিনা।

খুনিরা যে পূর্ব পরিচিত এবং অনেকদিন ধরে পরিকল্পনা করে খুন করছে সে বিষয়ে একপ্রকার নিশ্চিত তদন্তকারীরা। তবে পরিচিত ব্যক্তিই খুনি নাকি ভারাটে খুনি কাজে লাগানো হয়েছিল তদন্তে উঠে আসছে এই বিযয়টিও।

উল্লেখ্য, দশমীর দিন অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বিউটি পাল, বছর ছয়েকের শিশুপুত্র সহ সপরিবারে খুন করা হয় শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পালকে। পুজোর মাইকের আওয়াজে তাদের চিত্কারও কেউ শুনতে পায়নি। এক ব্যক্তিকে ছুটে যেতে দেখেছিলেন প্রতিবেশী। সেই কী খুনি ধন্দে পুলিশ।

সব মিলিয়ে এখনও একপ্রকার ধোঁয়াশায় তদন্তকারীরা। কিনারা করতে বারবার জিয়াগঞ্জে মৃত শিক্ষকের বাড়িতে এসে নমুনা সংগ্রহ করছেন তদন্তকারীরা।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here