দ্য পিপল ডেস্কঃ মহাষষ্ঠীতে মেতে উঠেছে বাঙালি। বাঙালির এই উৎসবের মাঝেই বিষাদের সুর মুর্শিদাবাদ, মালদহ এবং হাওড়ার একাধিক এলাকায় । ক্রমশ বাড়ছে জলস্তর। বন্যা কবলিত ফারাক্কা ব্লকের খোদাবন্দপুর, সাঁকোপাড়া ও মমরেজপুর। জলে ভাসছে রঘুনাথগঞ্জ ১ নং ব্লকের পঞ্চবটি গ্রাম ও সুতি ১ নং বংশবাটি।

জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছে একাধিক ঘরবাড়ি। ঘরছাড়া জারা মানুষ। পুজোর মরশুমে এমন প্রাকৃতিক দুর্যোগ চিন্তায় ফেলেছে মুর্শিদাবাদের মানুষকে। ইতিমধ্যেই নবান্নের তরফে জেলাশাসক এবং বিডিওদের পুজোর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। বন্যা পরিস্থিতি এলাকাগুলিতে করা নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন নয়া মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা।

এসবের মাঝেও বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে জঙ্গিপুরের একের পর এক এলাকা ছুটে বেড়াচ্ছেন শ্রম দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জাকির হোসেন। তিনি বিধায়ক, তাই দুর্যোগের তাঁকেই পাশে চাইছেন এলাকাবাসী। শুধুমাত্র এলাকা ঘুরে দেখাই নয়। সাধারণ মানুষের জন্য খাদ্য সামগ্রী এবং বস্ত্র নিয়ে উপস্থিত হলেন তিনি। তাঁকে পেয়ে আপ্লুত জলবন্দি মানুষরা। শরতের আকাশে এক ফোঁটা হাসি মিলছে মন্ত্রীর দেখাতেই।

মন্ত্রী হওয়ার আগেও সবসময়ই মানুষের পাশে থেকেছেন তিনি। ছুটে গিয়েছেন সর্বদাই সাধারণ মানুষের পাশে। তাই খুব কম সময়েই দলনেত্রীর প্রিয় একজন হয়ে ওঠেন। পাশপাশি শ্রম দফতরের মত গুরুত্বপুর্ন দফতর তার কাঁধে তুলে দেয় দল।

সম্প্রতি লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের গড়ে ঘাসফুল ফুঁটতে দেখা গিয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে জাকির হোসেনের দৌলতে নবাবী গড়ে ঘাসফুল ফুঁটেছে। কারণ দলনেত্রীর নির্দেশকে পাথেয় করেই সর্বদাই সাধারণ মানুষের বিপদে ছুটে গিয়েছেন তিনি। তাই এই প্রাকৃতিক দুর্যোগেও তাঁকে পাশে চায় এলাকাবাসী। পাশপাশি আগামী দিনেও তার ওপর ভরসা রাখছে দল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here