স্কুলে বই পড়বে ভেড়া !

0
70

দ্য পিপল ডেস্কঃ  একসময়ে স্কুলে পড়া না পারলে শিক্ষক-শিক্ষিকারা বিভিন্ন নামে ডাকতেন । তার মধ্যে ভেড়া বা ভেড়ার পাল ছিল গালভরা নাম । ছোটবেলায় এই নামে সম্বোধিত হয়নি এমন ছাত্র বোধহয় খুঁজে পাওয়া ভার ।

ভাবুন তো ! সেই মানবরূপী ভেড়ার বদলে সত্যিই যদি ক্লাসরুমের ছাত্র হয় ভেড়ার দল । স্কুলের ক্লাস রুমে সত্যি সত্যিই ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবর্তে ভেড়ারা পড়াশোনা করতে বসছে। অ্যাটেন্ডেন্সের সময় ইয়েস ম্যাম বা ইয়েস স্যারের পরিবর্তে শোনা যাচ্ছে ভেড়ার ডাক ! তাহলে কি এবার ভেড়াদেরকেও পড়াশুনা শিখিয়ে শিক্ষিত করা হচ্ছে ! ফ্রান্সের জুলস ফেরি গ্রামের একটি প্রাথমিক স্কুলের এই চিত্র অবাক করে দিয়েছে সারা  পৃথিবীকে ।

ব্রিটিশ সংবাদ সূত্রের খবর, এক চাষী তাঁর ১৫জন ভেড়াকে ফ্রান্সের জুলস ফেরি গ্রামের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি করেন ।  এই ঘটনায় সবাই তাজ্জব হলেও স্কুলে দায়িত্বে থাকা কেউই কোনও প্রতিবাদ করেনি। এমনকি স্থানীয় মেয়রও নাকি স্কুলে ভর্তি করার অনুমতি দেন।  তবে প্রশ্ন দানা বাঁধছে কেনই বা কেউ প্রতিবাদ করল না স্কুলে ভেড়ার ভর্তি হওয়া নিয়ে।

প্রসঙ্গত,  ওই গ্রামে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা কম হওয়ায় বন্ধ হয়ে যেতে পারে বিদ্যালয়ের পঠন-পাঠন।  সেই আশঙ্কাতেই ক্লাস ভর্তি করার উদ্দেশ্যে ছাত্রছাত্রীদের পরিবর্তে ভেড়ার পালকে ভর্তি  করানো হচ্ছে। তবে পুরোটাই স্কুল কর্তৃপক্ষের সহমতে চলছে- এমনটাই দাবি করা হয়েছে। ভেড়া হলেও ভর্তির প্রসেসিংয়ে বদল নেই। নাম, তারিখ সহ অন্যান্য সমস্ত নথিপত্র জমা দিয়েই ভর্তি নেওয়া হচ্ছে তাদেরকে ।

বলা বাহুল্য, ভেড়ারা যদি একবার শিক্ষিত হতে শুরু করে । আর হঠাৎ তার সহপাঠীর নাম ধরে ডেকে বসে । তাহলে, স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকারা আর ছাত্র-ছাত্রীদের ‘ভেড়ার পাল’ বলে তিরস্কার করতে পারবেন না । বলুন দেখি, কি জ্বালা !    

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here