দ্য পিপল ডেস্কঃ পরাক্রম দিবস কেয়া হ্যায়, নাম না করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের অন্যতম কাণ্ডারী নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মবার্ষিকী।
প্রধানমন্ত্রী এই দিনটিকে (২৩ জানুয়ারি) ‘পরাক্রম দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন।
সেই মতো এরাজ্যের একাধিক জায়গায় পরাক্রম দিবস পালন করেছেন বিজেপি নেতৃত্ব।
অন্যদিকে এই দিনটিকে (২৩ জানুয়ারি) ‘দেশনায়ক দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এদিন শ্যামবাজার পাঁচমাথার মোড়ে নেতাজি মূর্তির পাদদেশ থেকে রেড রোড পর্যন্ত বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা হয়।
শোভাযাত্রা শেষে রেড রোডে জমায়েতের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভাষণ দিতে গিয়ে ‘পরাক্রম দিবস কেয়া হ্যায়?’ বলে কটাক্ষ করেন মমতা।
তিনি বলেন, নেতাজি আমাদের হৃদয়ে আজীবন বিরাজ করবেন। তাঁর মৃত্যু নেই। জয় হিন্দ।
তাঁকে জানার জন্য পড়াশোনা করা উচিত।
এদিন ভাষণে দিল্লি-নির্ভরতা থেকে বেরিয়ে কলকাতা-সহ দেশের চার প্রান্তে চারটি রাজধানী করার দাবি তুলেছেন মমতা।
বলেন, ভারতের দক্ষিণ, উত্তর, পূর্ব এবং উত্তর-পূর্ব— এই চারটি প্রান্তে চারটি রাজধানী হোক।
ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে চারটি জায়গায় অধিবেশন হোক। দৃষ্টিভঙ্গি বদলাতে হবে।
ওয়ান লিডার, ওয়ান নেশনের মূল্য কী আছে?
এদিনের সভামঞ্চ থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে প্রশ্ন তোলেন, কেয়া হ্যায় পরাক্রম দিবস ?
‘পরাক্রম দিবস’কে কার্যত অগ্রাহ্য করে তিনি নেতাজির জন্মদিনকে ‘দেশনায়ক দিবস’ হিসাবে আখ্যা দিয়েছেন।
নেতাজির জন্মদিবসকে ‘পরাক্রম দিবস’ হিসেবে মানতে নারাজ নেতাজির পরিবারের সদস্য, শিক্ষাবিদ সুগত বসুও।
সুগত বসুর মতে, নেতাজি শুধুমাত্র যোদ্ধা ছিলেন না। তিনি ছিলেন চিন্তাবিদ।
তিনি ছিলেন ভবিষ্যতদ্রষ্টা। সেদিক থেকে ‘দেশনায়ক’ আখ্যাই বেশি পছন্দ সুগত বসুর।