দ্য পিপল ডেস্কঃ একদিকে করোনা সংক্রমণ, অন্যদিকে ভারতের মাটিতে ক্রমাগত আগ্রাসন বাড়িয়ে চলেছে চিন। এই নিয়ে পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে।

সূত্রের খবর, লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চিনের মধ্যে তৈরি হয়েছে সংঘাত। এই নিয়ে আজ বুধবার সেনাবাহিনী কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে। 

আগামী দুদিন ধরে এই বৈঠক চলবে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য বেজিংয়ের এই আগ্রাসনকে রোধ করতে ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তিন বাহিনীর প্রধানের সঙ্গে কথা বলেছেন। এই বৈঠকে হাজির ছিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং।

জানা গিয়েছে, উদ্বেগ বাড়িয়ে সীমান্তে আরও চারটি ফাইটার বিমান এনেছে চিন। ভারতের পক্ষ থেকে চিনের প্রতিটি সীমান্ত বরাবর অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হবে। ইতিমধ্যে তিন সেক্টর মিলিয়ে চিনের পাঁচ হাজারের বেশি সেনা অন্তরে নিয়ন্ত্রণরেখায় মোতায়েন করা হয়েছে।

গত দুদিন ধরে উত্তরাখণ্ডে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করছে চিন। চিনের এই অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা অস্বাভাবিক। এইজন্য ভারতও পাল্টা একটি ব্রিগেড তৈরি করে রাখতে চাইছে। ভারতকে চাপে ফেলতে পুরোপুরি ভাবে তৈরি হচ্ছে চিন, পাকিস্তান এবং নেপাল।