বিক্ষোভে শ্রমিকরা

দ্য পিপল ডেস্ক : লকডাউনের জেরে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়েছেন বিভিন্ন রাজ্যের শ্রমিকরা। পশ্চিমবঙ্গ সরকার ইতিমধ্যেই রাজ্যের বাইরে থাকা সমস্ত মানুষকে রাজ্যে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন।


কিন্তু অন্যান্য রাজ্যে এই সুযোগ মিলছে না এমনটাই জানা গিয়েছে।


এই নিয়ে ডুবুডিহি ঝাড়খন্ড-বাংলা সীমান্তে আটকে পড়া ৭০০ র বেশি শ্রমিকরা মিলে শুক্রবার সকালে বিক্ষোভ শুরু করে।


তাঁদের দাবি, তাঁদেরকে নিজেদের রাজ্যে যেতে দেওয়া হোক। সূত্রের খবর গত তিনদিন ধরে তাঁরা অনাহারে ঝাড়খণ্ড বর্ডারে তারা আটকে রয়েছেন। এদের মধ্যে অনেকের বাড়ি বিহার রাজ্যে আবার অনেকের বাড়ি ঝাড়খণ্ড রাজ্যে।


তিনদিন ধরে প্রশাসনকে বারবার এ কথা জানিয়ে অনুরোধ করেও কোনও সুরাহা না মেলায় অবশেষে তাঁরা বিক্ষোভের পথ বেছে নিয়েছেন। ব্যবস্থা নেওয়া হবে প্রশাসনের তরফে এ কথা বললেও আদেও কিছুই করা হচ্ছেনা।


আমরা পশ্চিমবঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করি। লকডাউন জেরে সমস্ত কাজ বন্ধ। যা টাকা ছিলো সেই দিয়ে এত দিন চললো কিন্তু এখন টাকা এখন শেষ।


তাই আমরা পায়ে হেঁটে বা সাইকেল নিয়ে নিজ নিজ বাড়ি যাচ্ছিলাম, কিন্তু ঝাড়খণ্ড প্রশাসন আমাদের নিজের রাজ্যে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। তিনি দিন ধরে আমরা অনাহারে দিন কাটাচ্ছি, আমাদের না খাবার দিচ্ছে না জল দিচ্ছে, এমনটাই জানিয়েছেন আটকে পড়া এক শ্রমিক।


আমাদের খাবার দাবার কিছু চাইনা শুধু নিজের রাজ্যে আমাদের ঢুকতে দেওয়া হোক, দাবি আরও এক শ্রমিকের।


এই বিক্ষোভ প্রদর্শনের খবর পেয়ে ঝাড়খণ্ড প্রশাসন জানায় শারীরিক পরীক্ষা করে তাঁদের নিজ নিজ রাজ্যে বা জেলায় ছাড়া হবে।


এই আশ্বাস পেয়ে বিক্ষোভকারী শ্রমিকরা শান্ত হয়। এরপর প্রশাসনের তরফে শ্রমিকদের নাম ও ঠিকানা নথিভুক্ত করা হয়।