দ্য পিপল ডেস্ক : বিশালাকার তিমি ভেসে এল মন্দারমনির সমুদ্রতটে। সোমবার সকালে তিমিটি দেখতে পেয়ে ঘটনাস্থলে ভিড় জমিয়েছেন উৎসুক এলাকাবাসীরা।


প্রাথমিক ভাবে তিমিটিকে ব্রাইডস হোয়াল প্রজাতির বলেই মনে করছেন মৎস্যজীবীরা। খবর গিয়েছে প্রশাসনের কাছেও।


এই মাছটিকে কি সংরক্ষণ করা হবে নাকি একে সমুদ্র পাড়েই বালি খুঁড়ে কবর দেওয়া হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।


প্রসঙ্গতঃ এর আগে ২০১২ সালের ১০ ডিসেম্বর দিঘা মোহনায় মৃত অবস্থায় ৪৫ ফুট লম্বা ও ১০ ফুট চওড়া এবং ১৮ টন ওজনের তিমি মৎস্যজীবীরা উদ্ধার করে।


প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে থাকা এই তিমি কিন্তু সাধারণ ভাবে মহাসাগরের গভীরে বসবাস করে।


তবে কোনওভাবে খাবারের সন্ধানে ঘুরতে ঘুরতে সেটি বঙ্গোপসাগরে চলে আসে। এরপর কোনও জাহাজের ধাক্কায় মাছটির মৃত্যু হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে।


পরে সেটি মৎস্যজীবীদের জালে এসে আটকে পড়ে। প্রায় ১ লক্ষ টাকা ব্যায়ে সেই জীবাশ্মের ওপরে জীবাণুনাশক বিশেষ কেমিক্যালের রঙের প্রলেপ লাগানোর পর সেটিকে ২০১৭ সালের ১৩ জুন থেকে দিঘা মেরিন অ্যাকোয়ারিয়ামে রাখা হয়েছে দর্শকদের জন্য।


মৎস্য আধিকারিক সুমন কুমার সাহু জানান, মন্দারমনিতে যে তিমিটা উঠেছে সেটি ব্রাইডস হোয়েল প্রজাতীর। এরা গভীর সমুদ্রে বসবাস করে।