দ্য পিপল ডেস্কঃ হুগলির ব্যান্ডেলের দেবানন্দপুর এর কৃষ্ণপুর গ্রামে প্রত্যেক বছর পয়লা মাঘ মাছের মেলা বসে।
পশ্চিমবঙ্গের সব জেলা থেকে সাধারণ মানুষ মেলা দেখতে এখানে আসেন।
ওই মেলায় গিয়ে জানা গেল পয়লা মাঘ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত এই মাছের মেলা থাকে। সমস্ত রকম মাছ এখানে পাওয়া যায়।
বড় মাছ থেকে শুরু করে ছোট মাছ এমনকি সুন্দরবনের কাঁকড়াও মেলে এখানে। শুক্রবার মেলায় গিয়ে দেখা যায়, ২৬ কিলোর ভেটকি মাছ, ১৯ কেজির ভেটকি।
সঙ্গে আছে ৫ কিলো ৭ কিলো ওজনের রুই কাতলা। ক্রেতা বিক্রেতার মাছের দাম নিয়ে চলছে দরাদরি। মাছের বাজারে ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।
বেশ কিছু মানুষকে দেখা গেল মেলা থেকে মাছ কিনে সেটি কাটিয়ে ভাজা করে সরস্বতী নদীর তীরে রান্না করে খাওয়া-দাওয়া করছেন।
মেলার পাশে বড় মন্দিরের প্রধান সেবায়েত অমর চক্রবর্তী জানালেন, চলতি বছর এই মাছের মেলা ৫১৪ বছরে পরল।
জানা গিয়েছে, রঘুনাথ দাস মহন্ত ছিলেন জমিদারের ছেলে। তিনি ১৫ বছর বয়সে গৃহত্যাগ করে পুরী যাচ্ছিল।
যাওয়ার পথে পানিহাটিতে গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর দর্শন পেলেন। নিত্যানন্দ প্রভুর কাছে দীক্ষা নিয়ে তিনি নীলাচলে চলে যান।
তারপর ফিরে আসেন গ্রামে। তার ফিরে আসার দিনটিকে স্মরণ করে গ্রামের মানুষ তার কাছে মাছ খেতে চায়। রঘুনাথ দাসজিও তাদের প্রার্থনা পূর্ণ করেন।
সেই থেকে তার নাম স্মরণ করে এই পয়লা মাঘের দিনটিতে মাছের মেলা বসে। মেলাকে ঘিরে অন্যান্য সব জিনিসের দোকানপাট বসেছে।