দ্য পিপল ডেস্ক: পৃথিবীর আর পাঁচটা দেশের থেকে এই দেশ একেবারেই আলাদা নয়।

এখানেও আর বাকী দেশগুলির মতো রাত নামে। পাহাড়, নদী সব রয়েছে এখানেও। একেবারে সৌন্দর্যে মোড়া দেশ। কর্মসংস্থানের এখানে অভাব নেই।

স্বাভাবিকভাবে সেখানে মানুষের সংখ্যাও অনেক। হাজার একটা সমস্যা কাটিয়ে তারা নিজেদের মতো আনন্দে থাকেন।

বিশ্বের মধ্যে রয়েছে সেইরকম ১০টি সুখী দেশ। সেই ১০টি সুখী দেশের মধ্যে কোন দেশ শীর্ষে রয়েছে আসুন জেনে নেওয়া যাক।

২০১৮-২০১৯ সালে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে বিশ্বের সবচেয়ে সুখী দেশের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

সেই সুখী দেশের তালিকার শীর্ষে রয়েছে ফিনল্যান্ড। এই দেশের মানুষেরা নিজেদের কাজ নিয়ে সবসময় ব্যস্ত থাকেন।

কিন্তু তাঁদের মধ্যে কাজের চাপে চোখেমুখে কখনই ক্লান্তির ছাপ দেখা যায় না।  

কানাডার ইউনিভার্সিটি অফ ব্রিটিশ কলম্বিয়ার প্রফেসার জন হেলিওয়েল জানিয়েছেন, এই দেশের মানুষেরা সবসময় হাশি-খুশি থাকেন। এই দেশের মানুষের মধ্যে কোনও হিংসা, ক্ষোভ, শত্রুতা নেই।

সেই কারণে অন্য দেশ থেকে ফিনল্যান্ডে অনেক প্রবাসী থাকতে আসেন।

তাঁরা এখানে থাকতে এসে বেশ আনন্দেই থাকেন। অন্য দেশ থাকতে আসা মানুষের সঙ্গে ফিনল্যান্ডের প্রবাসীরা খুব সুন্দর করে মানিয়ে গুছিয়ে নেন। ফিনল্যান্ডের সঙ্গে অন্য দেশের এখানেই খুব বড় পার্থক্য।    

সূত্রে খবর, স্বাস্থ্যকর পরিবেশ, মাথাপিছু আয়, সামাজিক সমর্থন, স্বাধীনতা, একে অপরের প্রতি বিশ্বাস সবদিক থেকে ফিনল্যান্ড একেবারে শীর্ষ স্থানে র‍য়েছে।

ফিনল্যান্ড ছাড়া বাকী সুখী দেশগুলির তালিকায় একবার দেখে নেওয়া যাক-

১। ফিনল্যান্ড

২। নরওয়ে

৩। ডেনমার্ক

৪। আইসল্যান্ড

৫। সুইজারল্যান্ড

৬। নেদারল্যান্ড

৭। কানাডা

৮। নিউজিল্যান্ড

৯। অস্ট্রেলিয়া

১০। সুইডেন

প্রফেসার জন হেলিওয়েলের মতে, ফিনল্যান্ডের মতো বিশ্বের বাকী দেশগুলিও খুব সুখী দেশ।

এখানেও মানুষ নিজেদের কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকতে ভালোবাসেন। একে অপরের সঙ্গে কথা বলে খুব মৃদু কণ্ঠে। যে কোনও ঝামেলা-অশান্তি থেকে দূরে থাকে এই দেশের মানুষেরা।

একে অপরের ওপরে বিশ্বাস রাখে। এই কারণ গুলির জন্য বিশ্বের সুখী দেশের তালিকায় রয়েছে এই ১০টি দেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here