দ্য পিপল ডেস্কঃ এবার ভারতের সব ধরনের বিজ্ঞাপন দেখানো নিষিদ্ধ করল পাকিস্তান। সেই সঙ্গে ভারতীয় সিনেমা বাজেয়াপ্ত করতে দোকানগুলিতে অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মিডিয়া উপদেষ্টা ফিরদৌস আশিক আওয়ান এক বিবৃতি দিয়ে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান।

শুক্রবারই জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক শ্রীনগরের সরকারি অফিস খোলার নির্দেশ দিয়েছেন। একদিকে যখন শান্তির হাওয়া ছড়াচ্ছে ভূস্বর্গে অন্যদিকে পাকিস্তান তখনও দুই দেশের সম্পর্ক তলানিতে নিয়ে যাচ্ছেন। একের পর এক একতরফা সিদ্ধান্ত নিয়ে ভারতের সঙ্গে আরও একধাপ সম্পর্ক ছিন্ন করল পাকিস্তান।

৩৭০ ধারার বিলোপ নিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘ সহ রাশিয়া, চিনের মতো দেশের দ্বারস্থ হয়েছে পাকিস্তান। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে সবাই এড়িয়ে গেলেও পাকিস্তান ক্রমশ আগ্রাসনের মানসিকতা বজায় রেখে চলেছে।

ফলে চলতি বছরে দুই বিরল ঘটনার সাক্ষী থেকেছে দুই দেশ। ইদের দিনেও দুই দেশের মিষ্টি বিনিময় হয়নি। ভারতের পাঠানো মিষ্টি নিতে অস্বীকার করা হয়েছে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে। ১৪ আগস্ট পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসেও মিষ্টি পাঠানো হয়নি এদেশে।  

এর আগে সমঝোতা এক্সপ্রেস, থর এক্সপ্রেস পরিষেবা বাতিল করেছে পাকিস্তান। বাতিল করেছে দুই দেশের মধ্যে চলা বাস পরিষেবাও।  

কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেওয়ায় বেজায় ক্ষুব্ধ পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। নিজের দেশে ষথেষ্ট সমালোচনার মুখে পড়েছেন।

পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশি এই ‘মূর্খের স্বর্গ’ থেকে বেরিয়ে আসার কথাও বলেছেন। তবুও নিজের সিদ্ধান্তে অনড় মনোভাব দেখিয়ে চলেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী।