দ্য পিপল ডেস্কঃ  অমীমাংসিত কলকাতা লিগ। কে জিতবে এই নিয়েই এখনও পর্যন্ত ধোয়াশা রয়েই গেল। যদিও এই অমীমাংসিত শংসাপত্রে আগে থেকেই ফার্স্ট ক্লাস নম্বর পেয়ে লিগ টেবিলে শীর্ষে বসে রয়েছে জহর দাসের পিয়ারলেস। 

কার্যত ধরে নেওয়া হচ্ছে, বড় কোনও অঘটনা না ঘটলে ক্রোমাদের ঘরেই ঢুকছে ২০১৯ কলকাতা লিগ। যদিও শেষ সুযোগ রয়েছে লাল হলুদ ব্রিগেডের কাছে। কাস্টমসকে ৭টি গোলের মালা পড়াতে পারলেই ফার্স্ট বয় হয়ে উঠতে পারবে আলেজান্দ্রোর ছেলেরা।

  প্রশ্ন উঠছে ইস্টবেঙ্গল কি পারবে কাস্টমসকে ৭ গোল দিতে ? চলতি লিগের পারফরমেন্স খুব একটু নজরকাড়ার মতো ছিল না। বলাইবাহুল্য পুরো লিগটাই সাদা-মাটাই লেগেছে। তারা কি পারবে সাত রামধনুর মতো সাতটি চমকপ্রদ গোল দিয়ে লিগ ছিনিয়ে আনতে? এটি অনেকটা আলাদিনের আশ্চর্য প্রদীপ পাওয়ার মতোই মনে করেছেন ফুটবল বিশেষজ্ঞরা।

  কিন্তু ইতিহাসের পাতা অন্য কথা বলছে। ১৯৪৬ সালে কলকাতা লিগে এর আগে কাস্টমসকে ৭-০ গোলে হারিয়েছিল লাল হলুদ ব্রিগেড। শুধু তাই নয়, ১৯৬৬ সালে স্পোর্টিং ইউনিয়নকেও ৭ গোল দিয়েছিল ইস্টবেঙ্গল।

 প্রসঙ্গত, গত রবিবার ছিল কলকাতা লিগের তিনটি বড় ম্যাচ। বলাই যায় লিগ নির্ধারনের দিন ছিল। ম্যাচ ছিল ইস্টবেঙ্গল বনাম কাস্টমস, পিয়ারলেস বনাম জর্জ টেলিগ্রাফ ও মোহনবাগান বনাম সার্দান সমিতির মধ্যে।   

 এদিন ক্রোমার জোড়া গোলে ভর জর্জকে উড়িয়ে দেয় পিয়ারলেস। এই জয়ের সঙ্গে কার্যত লিগ জয়ের কাছে পৌঁছে যায় ক্রোমারা। পাশাপাশি মোহনবাগানও শেষ ম্যাচে জয় তুলে নেয়। কিন্তু মাঠে খারাপ অবস্থার জন্যই বাতিল হয়ে যায় ইস্টবেঙ্গল-কাস্টমস ম্যাচ।

 পিয়ারলেস ২ গোলে এগিয়ে থাকায় সাত গোলের পাহাড় সমান ব্যবধান আলেজান্দ্রো দলের সামনে। কিন্তু ইস্টবেঙ্গল ম্যাচ কবে হবে এই নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা। ম্যাচ যে গড়াপেটাও হতে পারে এমনটাও কিন্তু অভিযোগ তুলেছেন পিয়ারলেস কোচ জহর দাস। 

 ৭৩ বছর আগের ইতিহাস পুনরাবৃত্তি করে রেকর্ড গড়তে পারবে ইস্টবেঙ্গল। এখন সেটাই দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here