||সুস্মিতা মজুমদার সাহা ||

আমাদের WHATSAPP গ্রুপে যুক্ত হতে ক্লিক করুন: Whatsapp

দেবশ্রী বিজেপিতে এলে আমি থাকব না। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার এক ঘন্টা না পেরতেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের এমন দাবিতে শুরু হল নয়া জল্পনা।

সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা তৃণমূল নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। যোগ দিয়েছেন তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

তারও আগে আরও এক তারকা তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রী রায়ের দলবদলের সম্ভাবনা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়। জানা যায়, দিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে পৌঁছেছেন দেবশ্রী। বিজেপিতে যোগ দেবেন তিনি। যদিও শেষ পর্যন্ত দেবশ্রী বিজেপিতে যোগ দেননি।

দিল্লি পর্যন্ত গিয়েও কেন বিজেপিতে যোগ দিলেন না দেবশ্রী রায়?  তৈরি হয় নতুন জল্পনা। জানা যায়, দেবশ্রী রায় বিজেপিতে যোগ দেবেন শুনে বেঁকে বসেন শোভন। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, দেবশ্রী থাকলে তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন না।

বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে বিজেপির উত্তরীয় গলায় পড়েন শোভন। ক্ষোভ উগরে দেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে, নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে মজবুত ভারত গড়ার লক্ষ্যে কাজ করতে বিজেপির হাত ধরেছেন তিনি।

তবে এত কিছুর মধ্যেও কয়েকটা প্রশ্ন উঁকি দিচ্ছেই। দেবশ্রী কী তবে বিজেপিতে যোগ দেবেন না? দেবশ্রী বিজেপিতে এলে শোভন কী তবে ফের দলত্যাগী হবেন?     

যদিও শোভন চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় জানান, শোভনবাবুর হাত ধরেই রাজনীতিতে এসেছিলেন অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়। তাহলে তাঁদের মধ্যে কি এমন হল যে একজনের জন্য অন্যজন তাঁর পদ ত্যাগ করতেও রাজি?

রায়দিঘির তৃণমূল বিধায়ক দেবশ্রীর সঙ্গে তৃণমূল নেতৃত্বের দূরত্ব তৈরি হয়েছে, এমনটা প্রকাশ্যে আসেনি। তবে কেন দেবশ্রী হঠাৎ বিজেপিতে যোগ দিতে দিল্লি চলে গেলেন? বাংলার রাজনীতিতে এক মুহূর্তে উঠে এল অনেক প্রশ্ন।